মেইন ম্যেনু

টেস্টের দ্বিতীয় দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির মালিক এখন স্টোকস

২০০২ সালে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নাথান অ্যাস্টল ডাবল সেঞ্চুরি করতে খেলেছিলেন ১৫৩ বল। টেস্ট ইতিহাসে সেটিই এখনও পর্যন্ত বলের হিসেবে দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরি। শ্রীলংকার বিপক্ষে ২০০৯ এর মুম্বাই টেস্টে ১৬৮ বলে ২০০-এর ঘরে পৌঁছে এতদিন দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির তালিকার দুইয়ে ছিলেন বীরেন্দ্র শেবাগ।

তবে, কেপ টাউনে চলমান ইংল্যান্ড-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনে শেবাগকে তিনে ঠেলে দিলেন ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নামা বেন স্টোকস। ব্যাট হাতে মরনে মরকেল, ক্রিস মরিস, ক্যাগিসো রাবাদাদেরকে রীতিমতো শাসন করে মাত্র ১৬৩ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নিলেন ২৪ বছর বয়সী স্টোকস।

১০৫ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন স্টোকস। সেঞ্চুরি করার সময় নামের পাশে ছিল ১৬টি চার আর একটি ছক্কা। ৫৮ বল পরে যখন মরকেলকে মিড-অন দিয়ে চার মেরে ডাবল সেঞ্চুরি ছুঁলেন, তখন নামের পাশে চারের সংখ্যা ২৬টি, ছক্কার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাতে।

ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ডাবল সেঞ্চুরি করার এটি মাত্র দশম ঘটনা। তবে ইংল্যান্ডের হয়ে এই কীর্তি প্রথম গড়লেন স্টোকসই। তার আগে ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্টে ছয় নম্বরে নেমে সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছিল গ্রায়েম হিকের। ইন্ডিয়ার বিপক্ষে ১৯৯৩ সালে মুম্বাই টেস্টে হিক করেছিলেন ১৭৮ রান। একই সাথে ইতিহাসের ২০ তম ব্যাটসম্যান হিসেবে স্টোকস লাঞ্চের আগেই তুলে নিলেন সেঞ্চুরি।

স্টোকসের তান্ডবে প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহের দিকে এগুচ্ছে ইংলিশরা। দ্বিতীয় দিন লাঞ্চে যাবার আগে তাদের সংগ্রহ পাঁচ উইকেটে ৫১৩। ২০৪ রান করা স্টোকসের সাথে অপরপ্রান্তে ৯৫ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন জনি বেয়ারস্টো।