মেইন ম্যেনু

টোপ সুন্দরী মডেল, ফাঁদে ফেলে গ্যাংস্টারকে মারল পুলিশ!

সিনেমার চিত্রনাট্য মনে হতে পারে, কিন্তু বাস্তবে এমনই ঘটনা ঘটেছে। সন্দীপ গাদোলি নামে এক বিপজ্জনক অপরাধীকে দীর্ঘদিন ধরেই খুঁজছিল পুলিশ। প্রায় ৩৬ টি গুরুতর অপরাধের মামলা ছিল তার বিরুদ্ধে। কিন্তু কিছুতেই তার নাগাল পাচ্ছিল না পুলিশ। সেই কারণেই ফাঁদ পাতার ছক তৈরি হল। দিব্যা পাহুজা নামে এক সুন্দরী মডেলকে টোপ হিসেবে ব্যবহার করে মধুচক্রের ফাঁদ পাতে পুলিশ।

অভিযোগ, ওই গ্যাংস্টারকে ফাঁদে ফেলতে মডেল তথা ইভেন্ট ম্যানেজার দিব্যাকে টোপ হিসেবে ব্যবহার করে পুলিশ। মুম্বইয়ের একটি হোটেল গুলি বিনিময়ে গুরুগ্রামের গ্যাংস্টার সন্দীপ মারা যায়।

দিব্যার দাবি, তিনি শুধু গুলির শব্দ শুনেতে পেয়েছিলেন। সন্দীপকে ছক কষেই সরানো হয়েছে বলে দিব্যা মুম্বই পুলিশকে জানিয়েছেন বলে অভিযোগ।

মুম্বই পুলিশ জানতে পেরেছে, গুলির লড়াইয়ের ঘটনা ঘটেনি। গ্যাংস্টারকে খুন করা হয়। জানা গেছে, ওই মডেলকে টোপ হিসেবে ব্যবহার করেছিল গুরুগ্রাম পুলিশ। পুলিশের ইঙ্গিতেই দিব্যা প্রেমের জালে সন্দীপকে ফাঁসান বলে অভিযোগ। তিনি সন্দীপের অবস্থান সম্পর্কে ফেসবুক ও হোয়াটস্যাপের মাধ্যমে গুরুগ্রাম পুলিশকে জানান। এরপরই পুলিশ সন্দীপকে নাগালে পায়।

এই ঘটনায় মুম্বই পুলিশের বিশেষ তদন্তকারী দল ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। এরইমধ্যেই ওই মডেল আশ্চর্যজনকভাবে নিরুদ্দেশ হয়ে গিয়েছেন। তিনি তাঁর ফেসবুক প্রোফাইল আপডেট করছেন। কিন্তু মুম্বই পুলিশ তাঁর নাগাল পাচ্ছে না।

সন্দীপের পরিবার ও আইনজীবীর অভিযোগ, ওই মডেলই এই মামলার একমাত্র সাক্ষী। তাই তাঁকেও সরিয়ে দেওয়া হতে পারে বা দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আইনজীবী ও সন্দীপের পরিবারের লোকজন। মুম্বই পুলিশ এখন ওই মডেলের সন্ধান করছে।-এবিপিআনন্দ