মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পের চোখে ‘নির্বোধ ও বোকা’ যারা

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা তথ্য-প্রমাণ দিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হ্যাকিংয়ের বিষয়টি জানালেও তা মানতে নারাজ নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রাশিয়াকে পাশে রেখে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা ও সংকট সমাধান করতে চান ট্রাম্প। তিনি বিশ্বাস করেন, প্রেসিডেন্ট হিসেবে তিনি ক্ষমতা গ্রহণের পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আরো বেশি সম্মান দেখাবে রাশিয়া।

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ গোয়েন্দারা ট্রাম্পকে জানিয়েছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের নির্দেশে মার্কিন নির্বাচনে হ্যাক করা হয়েছে। এ বিষয়ে ট্রাম্প কিছু না বললেও তিনি জানিয়েছেন, সাইবার নিরাপত্তা বাড়াতে কঠোর পদক্ষেপ নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

শুক্রবার গোয়েন্দাদের কাছে হ্যাকিং নিয়ে শোনার পর শনিবার একের পর এক টুইট করে রাশিয়ার সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপনের কথা বলেছেন ট্রাম্প। এ বিষয়ে ধারাবাহিক তিনটি টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘রাশিয়ার সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকা ভালো, মন্দ নয়। শুধু নির্বোধ বা বোকা লোকরাই মনে করে, এটি খারাপ। বিশ্বে অনেক সমস্যা আছে। আমি প্রেসিডেন্ট হলে রাশিয়া বর্তমানের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে আরো বেশি সমীহের চোখে দেখবে। উভয় দেশ বিশ্বের অনেক সমস্যার মধ্যে কিছু সমস্যা ও ইস্যুর সমাধানে যৌথভাবে কাজ করবে।’

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কমিটির ওয়েবসাইট ও হিলারির নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে সাইবার হামলা চালানো হয়। পরে সিআইএ ও এফবিআই যৌথভাবে জানায়, রাশিয়া থেকে এ হামলা হয়েছে। এর নেপথ্যে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন আছেন বলে দাবি ওঠে। শুক্রবার গোয়েন্দারা আরো পরিষ্কার করে জানান, হ্যাকিংয়ের নির্দেশ পুতিনই দেন। কিন্তু ট্রাম্প আছেন নিজস্ব গতিতে, পুতিনের শক্তিশালী নেতৃত্বের প্রতি তার অঘাত বিশ্বাস।

এদিকে, হ্যাকিংয়ের অভিযোগে রাশিয়ার ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৩৫ রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করে হোয়াইট হাউস। হ্যাকিংয়ের সঙ্গে জড়িত বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির বিরুদ্ধেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।