মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পের স্ত্রীকে যৌনকর্মী বলায় মামলা

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়াকে যৌনকর্মী বলায় যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল ও একজন ব্লগারের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

মেলানিয়া ট্রাম্পের আইনজীবী চার্লস হার্ডার ১৫ কোটি মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে এ মামলা করেছেন।

এ বিষয়ে হার্ডার বলেন, ১৯৯০ সালে মেলানিয়া যৌনকর্মী হিসেবে কাজ করেছেন বলে দাবি করেছে ডেইলি মেইল ও একজন ব্লগার।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনটি গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ১৯৯০ সালে মেলানিয়া খণ্ডকালীন ‘এসকর্ট’ (যৌনকর্মী) হিসেবে কাজ করেন। ওই কাজের সূত্রে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়।

অন্যদিকে ব্লগার ওয়েবস্টার টার্পলে লিখেছেন, মেলানিয়া এই ভেবে ভয় পেতেন যে, তাঁর অতীত প্রকাশিত হয়ে পড়বে।

মেলানিয়ার আইনজীবী চার্লস হার্ডার বলেন, ডেইলি মেইল এবং ব্লগার ওয়েবস্টারের দাবি ‘পুরোপুরি মিথ্যা’। সংবাদমাধ্যম ও ওই ব্লগার মেলানিয়া ট্রাম্প সম্পর্কে কিছু বক্তব্য দিয়েছেন, যা শতভাগ ভুল। আর এমন বক্তব্যের কারণে মেলানিয়ার ব্যক্তিগত ও পেশাগত জীবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই ক্ষতির পরিমাণ ১৫ কোটি মার্কিন ডলার।

৪৬ বছর বয়সী মেলানিয়া ১৯৯০ সালে স্লোভেনিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে যান। তখন একজন মডেল হিসেবে কাজ করতেন তিনি। ২০০৫ সালে তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিয়ে করেন।

স্লোভেনিয়ার সাময়িকী ‘সুজি’র বরাত দিয়ে ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৯০ সালে মেলানিয়া যুক্তরাষ্ট্রের যে মডেলিং এজেন্সিতে কাজ করতেন, তা একই সঙ্গে এসকর্টের ব্যবসায়ও জড়িত ছিল।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ১৯৯৫ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে মেলানিয়ার প্রথম সাক্ষাৎ হয়। তখন মেলানিয়া একজন নগ্ন মডেল হিসেবে কাজ করতেন।

মেলানিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ট্রাম্পের সঙ্গে তাঁর প্রথম সাক্ষাৎ হয় ১৯৯৮ সালে। আর আইনজীবীর দাবি, মেলানিয়া ১৯৯৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান।