মেইন ম্যেনু

ট্রেনের আগাম টিকিট: কমলাপুরে আসল ভিড়

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির প্রথম দিন ভিড় না থাকলেও দ্বিতীয় দিনে উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে কমলাপুরে। তবে ভিড় থাকলেও যাত্রীদের কোনো অভিযোগ নেই। তারা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেই টিকিট সংগ্রহ করছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত। আজ বিক্রি হচ্ছে ৮ সেপ্টেম্বরের টিকিট। একেক জনকে দেয়া হচ্ছে সর্বোচ্চ চারটি করে টিকিট। প্রতিদিন ২৩ হাজার ঈদের আগাম টিকিট বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন স্টেশন কর্মকর্তারা। কালোবাজারি ঠেকাতে র‌্যাব পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দারা নজরদারি করছেন।

ঢাকার পাশাপাশি অন্যান্য জেলা শহরের ট্রেনের এই আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। টিকিটের আশায় ভোর ছয়টা থেকে কমলাপুরে লাইনে দাঁড়ান অনেক যাত্রী। তবে কাউন্টারে ভিড় থাকলেও টিকিট প্রত্যাশীরা স্বস্তি নিয়েই স্টেশন ছেড়েছেন। কারণ সবাই সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন।

রাজশাহীগামী ধুমকেতু ট্রেনের কাঙ্খিত দিনের টিকিটের জন্য বন্ধুদের সঙ্গে দাঁড়িয়ে আছেন ঢাকা কলেজের ছাত্র তুহিন। কথা হয় তার সঙ্গে। টিকিটের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে তুহিন বলেন, ‘আগে ট্রেনের টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়েও অনেক সময় টিকিট পাওয়া যেত না, কাউন্টার থেকে বলা হতো টিকিট শেষ। কিন্তু গত ঈদুল ফিতর থেকে এরকম অবস্থা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। টিকিটের জন্য এবার মানুষের তেমন ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে না। আশা করছি আর কিছুকক্ষণের মধ্যেই আমিও টিকিট পেয়ে যাব।’

ভোড় সাড়ে ৫টায় টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার শাহাদাত হোসেন। টিকিট পেয়ে ভীষণ খুশি তিনি। তিনি বলেন, ‘রেলওয়ের ব্যবস্থাপনা আগের চেয়ে অনেক ভালো হয়েছে। টিকিটের জন্য ভোগান্তিতে পড়তে হয় নাই।’

কমলাপুর রেলওয়ের ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবতীর বলেন, ‘ঈদের আগাম টিকিট দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতিদিন ২৩ হাজার আগাম টিকিট দিচ্ছি। কেউ যাতে বিশৃঙ্খলা না করতে পারে সেজন্য পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত আছে। এখন পর্যন্ত কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই টিকিট বিক্রি হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘টিকিট বিক্রিতে কালোবাজারি রোধে আমরা সার্বিক ব্যবস্থা নিয়েছি। যারা লাইনে দাঁড়িয়েছেন সবাইকেই টিকিট দিতে পারবো।’

আগামী ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৮, ৯, ১০ ও ১১ সেপ্টেম্বরের আগাম টিকিট বিক্রি হবে। এছাড়া ঈদ-পরবর্তী সময়ে রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় ৫ থেকে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিক্রি হবে ১৪, ১৫, ১৬, ১৭ এবং ১৮ সেপ্টেম্বরের টিকিট।