মেইন ম্যেনু

ঠকুরগাঁওয়ে স্কুল ছাত্রীকে নির্যাতন ও শ্লীলতাহানীর চেষ্টার অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ॥ ঠাকুরগাঁওয়ে দশম শ্্েরণির এক স্কুল ছাত্রীকে নির্যাতন ও শ্লীলতাহানীর চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার পাহাড়ভাঙ্গা গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটে। রাতেই ওই স্কুল ছাত্রীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে স্থানীয়রা।

অভিযোগে জানা যায়, শুক্রবার রাতে পাহাড়ভাঙ্গা গ্রামের আক্তারুলের মেয়ে স্কুল ছাত্রী বাড়ির পাশে বের হয়। বসতবাড়ির মানুষের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার জেরে প্রতিপক্ষ রফিকুলের ছেলে সফিকুল ও আজিজুল তাকে মুখ চেপে ধরে বাড়ির পাশের একটি জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে কানের স্বর্নালংকার ছিড়ে নেয়। এতে কানের লতি ছিড়ে যায়। ওই সময় তাকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টাও করে বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর। তার চিৎকারে স্থানীয় প্রতিবেশিরা এতে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা: সারোয়ার হোসেন জানান, কানের অংশে লতি ছিড়ে গেছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য,গত ১০ অক্টোবর ওই গ্রামের ফয়জুল ও তোফাজ্জল বসতবাড়ির মানুষের চলাচলের জন্য রাস্তা বন্ধ করে দেয়। এতে ওই গ্রামে আশপাশের বেশ কিছু পরিবারের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এনিয়ে জাকির হোসেনের সাথে তোফাজ্জল-ফয়জুলের বিরোধ প্রকাশ্যে রুপ নেয়। প্রতিপক্ষের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় জাকির হোসেন। থানায় মামলা পাল্টাপাল্টি মামলাও হয়। জাকির হোসেনর মামলার পক্ষে আক্তারুল সাক্ষী হওয়ায় শুক্রবার রাতে তার মেয়ের উপর হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানায় তার পরিবার।