মেইন ম্যেনু

ডাক্তারের সাথে দেখা করার সময় মনে রাখুন এই ৫ টি বিষয়

ডাক্তারের সাথে দেখা করে বের হওয়ার পরে মনে হয়, যে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নটি করা প্রয়োজন ছিলো তা করা হয়নি! এই ধরণের ঘটনা বেশীর ভাগ মানুষের ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। ডাক্তারের সাথে দেখা করার আগে অনেক প্রশ্ন থাকলেও সবচেয়ে জরুরী প্রশ্নটি করার কথাই মনে থাকেনা। তাই চলুন জেনে নিই ডাক্তারের সাথে দেখা করতে যাওয়ার আগে যা করা প্রয়োজন সে বিষয়ে।

১। সময়ানুবর্তী হোন

একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেয়া যে খুব সহজ ব্যাপার নয় এটা আমরা সবাই জানি! তাই অ্যাপয়েন্টমেন্টের বিষয়ে সময়ানুবর্তী হওয়া খুবই প্রয়োজন। আপনি হয়তো অনলাইনে বা ফোনের মাধ্যমে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিয়েছেন। অ্যাপয়েন্টমেন্টের আগে আপনাকে কোন টেস্ট করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে কিনা খেয়াল করুন। যদি কোন টেস্ট যেমন- ব্লাড টেস্ট, ওজন ও উচ্চতা মাপা ইত্যাদি করানোর পরামর্শ দেয়া হয় তাহলে আপনাকে ২০-৩০ মিনিট আগেই পৌঁছাতে হবে ডাক্তারের চেম্বারে অথবা ক্লিনিকে।

২। তালিকা করুন

ডাক্তারের কাছে যাওয়ার আগে মনে অনেক প্রশ্ন থাকলেও ডাক্তারের চেম্বারে ঢুকার পড়ে অনেকেই এই প্রশ্নগুলো করতে ভুলে যান। ডাক্তারের কাছে যাওয়ার আগেই আপনার সমস্যা গুলো একটি কাগজে লিখে নিতে পারেন পয়েন্ট আকারে। আপনার সমস্যাটির বিষয়ে আপনি কী কী জানতে চান তাও লিখে নিতে পারেন। এর ফলে ডাক্তারের সাথে সাক্ষাত করে বেড়িয়ে আসার পরে আর আপনাকে হা-হুতাশ করতে হবেনা যে, এটা জিজ্ঞেস করা উচিৎ ছিলো! ওইটা বলতে ভুলে গেলাম! ইত্যাদি ইত্যাদি।

৩। চিকিৎসককে সাহায্য করুন

আপনি যদি আপনার রোগের সম্পূর্ণ ইতিহাস সঠিকভাবে ডাক্তারের কাছে না বলেন তাহলে অনেক ভালো ডাক্তার ও আপনার রোগ ভালো করতে পারবেনা। তাই চিকিৎসকের কাছে কোন বিষয় লুকানো উচিৎ নয়। নিজেকে পুরোপুরি সুস্থ করতে হলে চিকিৎসককে আপনার পারিবারিক ও রোগের ইতিহাস বলুন। এর ফলে আপনি সঠিক চিকিৎসা পাবেন।

৪। উদ্বেগের কথা বলুন

ডাক্তারের কাছে যাওয়ার কথা শুনলেই অনেকে নার্ভাস হন, এটা খুবই স্বাভাবিক। আপনার অনুভূতির কথা আপনার ডাক্তারকে বলুন যাতে তিনি আপনাকে সহজ হতে সাহায্য করতে পারেন। আপনি যদি উদ্বেগ অনুভব করেন তাহলে ডাক্তারের সাথে ঠিকমত কথা বলা ও নিজের অভিবেক্তি বেক্ত করা কঠিন হয়ে পড়বে।

৫। প্রশ্ন করুন

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ডাক্তারের সাথে সাক্ষাতের সময় একতরফা কথোপকতন হয়ে থাকে। ডাক্তার জিজ্ঞেস করেন আর আপনি উত্তর দেন। যদি আপনার ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসাপদ্ধতি আপনি পরিষ্কারভাবে না বোঝেন তাহলে ডাক্তারকে প্রশ্ন করে বুঝে নেয়ার চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে ডাক্তারের নির্দেশনাগুলোর প্রিন্টেড কপি বা লিখে দেয়ার অনুরোধ করুন অথবা আপনি নিজেও লিখে নিতে পারেন। আপনার ডাক্তার আপনাকে অবশ্যই সাহায্য করবে।