মেইন ম্যেনু

ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিক প্রবীর সিকদার

সাংবাদিক প্রবীর সিকদারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে গেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

রোববার সন্ধ্যায় তেজগাঁওয়ের ইন্দিরা রোডে অবস্থিত প্রবীর সিকদারের অনলাইন পত্রিকা ‘উত্তরাধীকার ৭১ নিউজ’ অফিস থেকে তাকে নিয়ে যায় পুলিশ। প্রবীর শিকদারের ছেলে সুপ্রিয় সিকদার এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, তার বাবা নিরাপত্তাজনিত কারণে গত ২২ জুলাই শেরেবাংলা নগর থানায় জিডি করতে গেলে তা নেয়নি পুলিশ। পরবর্তীতে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই কথা জানিয়ে উল্লেখ করেন তার কিছু হলে কয়েকজন দায়ী থাকবেন। পরে রোববার সন্ধ্যায় শেরেবাংলা থানার এসআই জলিলের নেতৃত্বে একটি টিম এসে নিরাপত্তার কথা বলে নিয়ে যান। এ সময় তিনি ওই গাড়িটিকে অনুসরণ করেন। মাঝপথে পুলিশের গাড়ি পরিবর্তন করে অপর একটি গাড়িতে (ঢাকা-মেট্রো-গ ১১-৩৬৩৮) তাকে তুলে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়।

এ ব্যাপারে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেসন্স বিভাগের উপকমিশনার মুনতাসিরুল ইসলাম জানান, প্রবীর সিকদার পুলিশের কাছে গিয়ে নিরাপত্তা পাননি এবং তার কিছু হলে কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি দায়ী থাকবেন বলেও তিনি জানান। এ সব বিষয়ে শোনার জন্য তাকে নিয়ে আসা হয়েছে।

২০০১ সালে দৈনিক জনকণ্ঠের ফরিদপুর প্রতিনিধি থাকাকালে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়ে একটি পা হারান প্রবীর সিকদার। জনকণ্ঠে থাকাকালীন তিনি ‘সেই রাজাকার’ শিরোনামে একটি ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। ওই প্রতিবেদেনে বিশেষ কিছু ব্যক্তির মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত থাকার বিষয়ে লিখেছিলেন তিনি। এসব ঘটনায় ওপর ওই হামলা হয় বলে ওই সময় থেকে অভিযোগ করে আসছেন প্রবীর সিকদার।