মেইন ম্যেনু

ডিমলায় মহিলাকে হত্যার অভিযোগে মাদক ব্যবসায়ী আটক

শরিফুল ইসলাম, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর ডিমলায় অজ্ঞাত মহিলা হত্যার অভিযোগে বুধবার রাতে মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিন সুন্দরখাতা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল লতিফের পুত্র মাদক ব্যবসায়ী শাহিনুর রহমান (৩০) আটক করা হয়।

এ ঘটনায় অপর মাদক ব্যবসায়ী কাসাই রবিউল ইসলামের পুত্র লিটন (২৮) জড়িত রয়েছে মর্মে পুলিশ নিশ্চিত করেছে। পুলিশ জানায়, লিটন ও শাহিনুর দীর্ঘদিন থেকে মাদক ব্যবসা সাথে জড়িত। তাদের মাদক স্পট থেকে ৫ হাত দুর অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়েছিল।

উক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন এলাকা থেকে মহিলা ভাড়া করে সেখানে এনে মাদকের পাশাপাশি দেহ ব্যবসা করত মর্মে তদন্তে নিশ্চিত হয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিমলা থানার সিনিয়র ইন্সেপেক্টর সাহাবুদ্দিন। বৃহস্পতিবার আটককৃত শাহিনুরকে আদালতের ৭দিনের রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর দুপুরে বুড়িতিস্তা নদীর ভাসমান অবস্থায় অজ্ঞাত মহিলা লাশ উদ্ধার করা হয়েছিল। উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিন সুন্দরখাতা গ্রামের বুড়িতিস্তা নদীর খোকসার ঘাট নামক স্থান থেকে পুলিশ লাশটি উদ্বার করেছিল। অজ্ঞাত মহিলার আনুমানিক বয়স ২৫ বছর। শ্যামলা বর্নের ওই লাশের পড়নে ছিল সেলোয়ার কামিজ। পায়ের সেন্ডেল, ওড়না ও মাথার খুপিটি বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ও পাশে ফেন্সিডিল খালি বোতল পাওয়া যায়। অজ্ঞাত মহিলাটিকে ধর্ষনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে রাখে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ঘটনার দিন ডিমলা থানায় ৩০২ ধারায় মামলা নং-২৩ দায়ের করেন।

ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ রহুল আমিন খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মাদক স্পট সংলগ্ন হওয়ায় মাদক ব্যবসায়ীরা জড়িত। লিটনকে গ্রেফারের চেষ্টা চলছে। লিটনকে গ্রেফতার করতে পারলে ঘটনার আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে। মোবাইল ট্রেকিং মাধ্যমে আসামীদের নিশ্চিত করা হয়েছে। শাহিনুরকে রিমান্ডে আনলে অজ্ঞাত মহিলার পরিচয় নিশ্চিত করার পাশাপাশি ঘটনার আসল রহস্য জানা যাবে।