মেইন ম্যেনু

ডিম, ঘি, মধু নিয়ে প্রচলিত যে ভুল ধারণা আপনার!

কিছু কিছু খাবার আছে যা নিয়ে দীর্ঘদিনের ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত রয়েছে। গবেষকরা তাদের গবেষণায় দেখিয়েছেন এসব খাবার খেলে যেসব নেতিবাচক প্রভাবের কথা বলা হয় তা একেবারেই ভুল। এজন্যই কখনো কখনো দেখা যায় ডায়েট চার্ট বানিয়েও কোলেস্টরল বা হার্টের অসুখ নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। কারণ প্রতিদিনের খাবার নিয়ে এমন কিছু ভুল ধারণা রয়েছে যার ফলে আপনি ভুল ডায়েট ফলো করেছেন। জেনে নিন সেই ভুল ধারণাগুলো:

ডিম খেলে কোলেস্টরল বাড়ে: এটি একটি ভ্রান্ত ধারণা। একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির প্রতিদিন ৩০০ এমজি কোলেস্টরল প্রয়োজন হয়। একটি ডিমে প্রায় ২১৫ এমজি কোলেস্টরল থাকে। ২০১২ সালের ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশন-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, অতিরিক্ত ডিম খেলেও হার্টের অসুখে তাতে সামান্যই প্রভাব পড়ে। ফলে বেশি না হলেও দিনে অন্তত একটা ডিমে ক্ষতি নেই।

দেশি ঘি স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর: এটাও ভ্রান্ত ধারণা। একটা সময় ছিল যখন গরম ভাতে কয়েক চামচ ঘি ছড়িয়ে দিয়ে খাওয়া শুরু করা হতো। দিনে দিনে সেই ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। কারণ অনেকেই মন করেন, ঘি খেলে ওজন বাড়ে। অথচ বিশুদ্ধ দেশি ঘিতে রয়েছে ৬৫ শতাংশ স্যাচুরেটেড ফ্যাট ও ৩২ শতাংশ মুফা। মুফা কোলেস্টরল কমাতে সাহায্য করে। তাই দেশি ঘি অনেক বেশি স্বাস্থ্যকর।

ওজন কমাতে চিনির চাইতে মধু ভালো: এটা একেবারেই ভুল ধারণা। অনেকেই ওজন কমাতে চিনির বদলে অনেকে মধু খেয়ে থাকেন। কিন্তু এতে আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে না। কারণ মধুতে চিনির চেয়ে বেশি ক্যালোরি থাকে। ১ টেবিল চামচ মধুতে প্রায় ৬৫ ক্যালরি থাকে। অন্য দিকে, একই পরিমাণ চিনিতে ক্যালরি থাকে ৪৬।