মেইন ম্যেনু

ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট এর সঠিক বয়স কত?

ক্ষয় হয়ে নষ্ট হয়ে যাওয়া দাঁত অথবা কোন কারণে পড়ে যাওয়া দাঁতের স্থানে কৃত্রিম দাঁত সংযোজন করার পদ্ধতিকেই ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট বলে। এটি দাঁত প্রতিস্থাপনের একটি নিরাপদ পদ্ধতি। কারণ এর ফলে অন্যান্য দাঁতের কোন ক্ষতি হয়না এবং মুখের গঠনের ও কোন পরিবর্তন হয়না। ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করলে রোগী ঠিকমত খেতে পারে, কথা বলতে পারে এবং হাসতে পারে আত্মবিশ্বাসের সাথে। তারপরও কিছু নিষেধাজ্ঞা থাকে বলে সবাই ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করাতে পারেন না এবং বয়স তাদের মধ্যে একটি। ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট এর সঠিক বয়স কত? সে বিষয়ে জেনে নিই চলুন।

ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট এর সাফল্য যে বিষয়গুলোর উপর নির্ভর করে তা হল

– কৃত্রিম যে অংশটি যুক্ত করা হবে তার উপর

– রোগীর মৌখিক স্বাস্থ্যের উপর

– রোগীর প্রাত্যহিক অভ্যাসের উপর

– বয়স

– লিঙ্গ

ভালো ফলাফল পাওয়ার জন্য সঠিক সময়ে ইমপ্ল্যান্ট করানোটা গুরুত্বপূর্ণ। ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট এর সাফল্য অনেকাংশে নির্ভর করে বয়সের উপর। বয়সের সাথে সাথে হাড় ক্ষয় হতে থাকে। ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট এর কার্যকারিতা হাড়ের শোষণের উপর নির্ভর করে।

ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করানোর ন্যূনতম বয়স

শিশুর স্থায়ী দাঁত ক্ষতিগ্রস্থ হলে ইমপ্ল্যান্ট করানোর প্রয়োজন পড়ে। এজন্য বয়ঃসন্ধিকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় যাতে তার চোয়ালের হাড়ের মৌলিক বৃদ্ধি সম্পন্ন হয়। যদি ক্রমবর্ধমান মাড়িতে চিকিৎসা করা হয় তাহলে চোয়ালের হাড়ের প্রাকৃতিক বৃদ্ধি বাঁধাগ্রস্থ হতে পারে। ফলে মাড়ির হাড়ে বড় কোন পরিবর্তন হতে পারে।

চোয়ালের বৃদ্ধি ১৮-২০ বছর বয়স পর্যন্ত হতে পারে। এই সময়ের মধ্যেই অনুপস্থিত দাঁতের চিকিৎসা শুরু করার পরামর্শ দেয়া হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে তা ১৬ বছর বয়সেও করা যেতে পারে। যেহেতু প্রতিটি মানুষই আলাদা তাই ২০ বছরের নীচের শিশু-কিশোরদের ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্টের সম্ভাব্য সময় নির্ধারণের বিষয়টি ডাক্তারের উপর ছেড়ে দেয়াই ভালো। বিভিন্ন পরীক্ষার মাধ্যমে গ্রোথের সক্রিয়তা বৃদ্ধি বা সমাপ্তির ইঙ্গিত পাওয়া যায়।

ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করানোর সর্বোচ্চ বয়স

বয়স্ক রোগীদের ক্ষেত্রে ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করা সফল হয়। পূর্ণবয়স্ক ও বয়স্ক মানুষের হাড়ের পরিমাণ ঠিক থাকে বলে ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট প্রক্রিয়াটি সঠিকভাবে সম্পন্ন করা সহজ হয়। ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করানোর সর্বোচ্চ বয়সের কোন নির্দিষ্ট সীমার কথা বলা হয়নি। যেকোন মানুষই ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করাতে পারেন যদি তার চিকিৎসক তার শারীরিক ফিটনেস ঠিক আছে বলে মনে করেন।

যেকোন বৃদ্ধ মানুষই যিনি তার হাসি নিয়ে উদ্বিগ্ন তিনি তার অনুপস্থিত দাঁতের স্থানে ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করাতে পারেন সুন্দর হাসির জন্য। ৯০ বছর বয়সের ও বেশি বয়সের মানুষ কোন জটিলতা ছাড়াই এই চিকিৎসাটি করাতে পারেন। ৬৫ বছরের বেশি বয়সের মানুষদেরই ডেন্টাল ইমপ্ল্যান্ট করাতে দেখা যায় বেশি।