মেইন ম্যেনু

ঢাকাকে কাঁদিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে বরিশাল

বিপিএলে শনিবার এলিমিনেটর ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৮ রানে হারিয়ে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে টিকে থাকলো বরিশাল বুলস। আর বিপিএলের এবারের আসর থেকে বিদায় নিলো নাসির হোসেন-কুমার সাঙ্গাকারার দল ঢাকা ডায়নামাইটস।

আগামীকাল সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের মুখোমুখি হবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ-ক্রিস গেইলের দল। শনিবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে রংপুরকে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে উঠেছে মাশরাফির দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

এদিন বরিশাল বুলসের দেয়া ১৩৬ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১১৭ রান করে ঢাকা ডায়নামাইটস।

দলের পক্ষে আবুল হাসান ১১, ফরহাদ রেজা ২০, মোহাম্মদ হাফিজ ১, কুমার সাঙ্গাকারা ১০, নাসির হোসেন ১৬, মোসাদ্দেক হোসেন ২৬, ম্যালকম ওয়ালার ১৮, ইয়াসির শাহ শূন্য, মোশাররফ হোসেন ৩* ও নাবিল সামাদ ৩* রান করেন। বরিশাল বুলসের পক্ষে আল-আমিন হোসেন ৩টি, কেভিন কুপার ৩টি ও তাইজুল ইসলাম ২টি করে উইকেট নেন।

ঢাকা ডায়নামাইটসের ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামে আবুল হাসান ও ফরহাদ রেজা। তাদের প্রথম উইকেটের পতন ঘটে দলীয় ১৩ রানে। চতুর্থ ওভারে আবুল হাসানকে গেইলের হাতে ক্যাচ বানিয়ে ফিরিয়ে দেন কেভিন কুপার।

ষষ্ঠ ওভারে মোহাম্মদ হাফিজকেও ফিরিয়ে দেন কুপার। অষ্টম ওভারে ফরহাদ রেজাকে ফেরান আল-আমিন হোসেন। দশম ওভারে নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে কুমার সাঙ্গাকারাকে ফেরান আল-আমিন। ১৪তম ওভারে নাসির হোসেনকেও সাজঘরে ফেরান আল-আমিন।

১৮তম ওভারে ম্যালকম ওয়ালারকে সাজঘরে ফেরান তাইজুল ইসলাম। একই ওভারে মোসাদ্দেক হোসেনকেও ফেরান তাইজুল। ১৯তম ওভারে ইয়াসির শাহকে ফেরান কুপার।

এর আগে বরিশাল বুলস টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রান সংগ্রহ করে। দলের পক্ষে ক্রিস গেইল ৩১, সাব্বির রহমান ৪১ ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৩৭ রান করেন। ঢাকার পক্ষে মুস্তাফিজুর রহমান ২টি, নাসির হোসেন ১টি, মোশাররফ হোসেন ১টি ও নাবিল সামাদ ১টি করে উইকেট নেন। এদিন ম্যাচ সেরা হন বরিশাল বুলসের আল-আমিন হোসেন।