মেইন ম্যেনু

ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকার চার লেন রাস্তা হচ্ছে

রাজধানীর ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকার নৌপথ চালু করা হয়েছে। এখন ৯১ কিলোমিটার দীর্ঘ ৪ লেন বিশিষ্ট একটি বৃত্তাকার সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২২জুন) সকালে দশম জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনের সরকারি দলের সংসদ সদস্য আ ফ ম বাহাউদ্দিনের (নাছিম) এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী একথা জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজধানী ঢাকার চারপাশে নদীসমূহের মাধ্যমে বৃত্তাকার নৌপথ ও সড়ক চালুকর করা হয়েছে। নৌপথটিকে মালামালবাহী কার্গো জাহাজ নিয়মিত চলাচলসহ সীমিত আকারে যাত্রীবাহী ওয়াটার বাস চলাচল করছে। বৃত্তাকার নৌপথ প্রকল্পের অংশ হিসেবে ঢাকার চারপাশে নদীসমূহে প্রয়োজনীয় খনন, ল্যান্ডিং স্টেশন নির্মাণ এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজ সম্পাদন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গৃহীত প্রকল্পটি ১ম ও ২য় পর্যায়ে অর্থাৎ দুই দফায় বাস্তবায়িত হয়েছে। ইতোমধ্যে রাজধানীর চারপাশের নদীসমূহের সমন্বয়ে বৃত্তাকার নৌপথ চালু করা হয়েছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সড়ক পথ চালু করার জন্য আব্দুল্লাহপুর থেকে শুরু হয়ে ধউর-বিরুলিয়া- গাবতলী- বাবুবাজার- সদরঘাট- ফতুল্লা- চাষাড়া- সাইনবোর্ড- সিমরাইল- ডেমরা- পূর্বাচল সড়ক- তেরমুখ হয়ে আবদুল্লাহপুর পর্যন্ত ৯১ কিলোমিটার দীর্ঘ ৪ লেন বিশিষ্ট ও ৫ মিটার বিভাজকসহ একটি বৃত্তাকার-সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা সরকার গ্রহণ করেছে।’ একই সাথে সড়ক নিরাপত্তা ও নির্বিঘ্ন রাস্তা পারাপারের লক্ষ্যে আন্ডারপাস ও ফুট ওভারপাস নির্মাণ করা হবে বলে জানান তিনি।

বৃত্তাকার সড়কের জন্য প্রস্তাবিত এলাকার সড়কগুলোকে বর্তমানে খুব ধীরগতি সম্পন্ন। যা যানবাহনের জন্য আলাদা ২ লেন সম্পন্ন সার্ভিস রোডসহ ৪ লেন সড়কে উন্নীত করা এবং সড়কের মাঝে ৫ মিটার বিশিষ্ট বিভাজকের সংস্থান রাখা এবং গুরুত্বপূর্ণ ইন্টারসেকশনে ফ্লাইওভার নির্মাণের মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন যান চলাচল নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যেই এই প্রকল্প নেয়া হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী জানান, ডেমরা থেকে তেরমুখ পর্যন্ত ২৪ কিলোমিটার অংশে বর্তমানে কোন সড়ক বা বাঁধ না থাকায় ইস্টার্ন বাইপাস প্রকল্পের আওতায় পানি উন্নয়ন বোর্ড হতে ওই অংশে বেড়িবাঁধ নির্মাণের পর সড়ক ও জনপথ ৪ লেন বিশিষ্ট সড়ক নির্মাণ করা হবে। এই ২৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট ঢাকা সমন্বিত বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ কাম ইস্টার্ন বাইপাস বহুমুখী প্রকল্প শীর্ষক প্রকল্পটিকে ফেজ-১ আখ্যায়িত করে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়কে লিড এজেন্সি করে সংশ্লিষ্ট অন্য সংস্থার সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে পিডিপিপি প্রণয়নের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, অবশিষ্ট ৬৭ কিলোমিটার অংশকে ঢাকা-সার্কুলার রোড, ফেজ-২ হিসেবে নামকরণের প্রস্তাব করা হয়েছে। এই প্রকল্পের লিড মন্ত্রণালয় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।