মেইন ম্যেনু

তদন্তের আগেই বিএনপি-জামায়াতকে জড়াচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

সরকারের পা ক্রমাগত চোরাবালিতে তলিয়ে যাচ্ছে বলেই বিএনপিকে হুমকি ধামকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ড নিয়ে প্রধানমন্ত্রী তদন্তের আগেই বিএনপি-জামায়াতকে জড়িয়ে বক্তব্য দিলেন। তিনি এ কি করলেন?

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১টায় নয়াপল্টন দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, হিংসাত্মক আক্রমণ, অনাচার ও নৈরাজ্য আওয়ামী লীগের জন্মগত বৈশিষ্ট্য। তাই তাদের আগ থেকেই এমন প্রস্তুতি থাকে যে তারা এমন ঘটনা ঘটাবো আর বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করবো।

সোমবার (গতকাল) কাশিমপুর কারাগারে কারারক্ষী ও রাজধানীতে দুজনকে বাসায় ঠুকে হত্যার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, চরম অরাজকতায় গভীর অন্ধকারে দেশ, আইনি প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী কি করে বলেন এসব ঘটনার সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জড়িত। সীমাহীন ব্যর্থতায় জনগণের দৃষ্টিভঙ্গি অন্যদিকে ফেরাতে এসব ঘটনা ঘটানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, ভোটারবিহীন নির্বাচন হওয়ায় সরকারের কোন জবাবদিহিতা নেই, তাই জনগণের জানমালের নিরাপত্তা আজ হুমকির মুখে। দলীয় লোকদের দিয়ে বাহিনী গঠন করে সবুজ বাংলা রক্তিম রঙে ডেকে গেছে। সরকারের বিরুদ্ধে যারা কথা বলেন তাদের বিরুদ্ধেই সরকার নির্যাতন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে তিনি।

শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া তার স্বামীর প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন জানিয়ে রিজভী বলেন, শফিক রেহমানকে রিমান্ডে নিয়ে মিথ্যা স্বীকারোক্তির জন্য নির্যাতন চালানো হচ্ছে। তার জীবন নিয়ে আমরাও অাশঙ্কা করছি। তিনি বলেন, দেশে এখন নির্বাচন মানেই হচ্ছে রক্ত ঝড়ানো, কেন্দ্র দখল, ভোট ডাকাতি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান কামাল ইবনে ইউসুফ, যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দিন মামুন, ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা খানম নাসরিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা, সহ-ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক রাহেলা হক রঞ্জু প্রমুখ।