মেইন ম্যেনু

তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন আদালতে

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দিয়েছে সিআইডি।

সোমবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে প্রতিবেদনটি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুনতাহিম বিল্লাহর আদালতে জমা দেওয়া হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুমিল্লা সিআইডির পরিদর্শক গাজী মোহাম্মদ ইব্রাহিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মার্চ কুমিল্লা সেনানিবাসের বাসার নিকটের একটি জঙ্গল থেকে তনুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরদিন কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজে তনুর প্রথম ময়নাতদন্ত করেন ডা. শারমিন সুলতানা। গত ৪ এপ্রিল দেওয়া হয় প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন। ওই প্রতিবেদনে তনুকে হত্যা ও ধর্ষণের আলামত না থাকায় দেশব্যাপী সমালোচনার মুখে পড়ে ফরেনসিক বিভাগ।

পরে আদালতের নির্দেশে ৩০ মার্চ দ্বিতীয় দফায় ময়নাতদন্তের জন্য তনুর মরদেহ মুরাদনগর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের কবর থেকে উত্তোলন করে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ ও দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত করা হয়। ডিএনএ রিপোর্টে তনুর কাপড়ে ৩ পুরুষের শুক্রানু পাওয়া যায়।

গত রোববার দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট প্রকাশ করা হলে সেখানে তনুর মৃত্যুর আগে যৌন সম্পর্কে কথা বলা হলেও ধর্ষণের কথা বলা হয়নি। এদিকে তনুর মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত করতে পারেনি ময়নাতদন্ত বোর্ড।