মেইন ম্যেনু

তলপেটের চর্বি কিডনির জটিলতা বাড়ায়

তলপেটের স্থূলতার কারণে অধিকাংশ তরুণ-তরুণীদের দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগের অতিরিক্ত ঝুঁকি রয়েছে। এখন পর্যন্ত বেশির ভাগ প্রাপ্তবয়স্ক এই ঝুঁকি সম্পর্কে অসেচতন বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়েছে।

পেট এবং তলপেটের চারপাশে অতিরিক্ত চর্বি জমে যাওয়াকে পেটের স্থূলতা বা মূল স্থূলতা হিসেবে ধরা হয়। যা স্বাস্থ্যের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

গবেষণায় দেখা যায়, ১১ শতাংশ স্থূলতার ক্ষেত্রে অ্যালবুমিনিউরিয়া(প্রস্রাবে প্রোটিন অ্যালবুমিনের উচ্চ মাত্রা) থাকে। এর মানে হচ্ছে, কিডনি স্বাভাবিকভাবে কাজ করছে না। এই ধরনের রোগীদের দীর্ঘস্থায়ী কিডনি জটিলতার সম্ভাবনা থাকে বেশি। এই অবস্থা তৈরি হলে কিডনির কার্যক্ষমতা দিন দিন হ্রাস পেতে থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল এবং রিসার্চ ফেলো হরিনি সারাথি বলেন, এই গবেষণায় আমরা স্থূলতার সঙ্গে কিডনি রোগের যোগসূত্র বের করার চেষ্টা করেছি। স্বাস্থ্যবানদের তরুণ-তরুণীদের মধ্যেও এর প্রভাব খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হয়েছে।

যেসব তরুণ-তরুণীদের মধ্যে অ্যালবুমিনিউরিয়া খুঁজে পাওয়া গেছে তাদের মধ্যে মাত্র ৫ শতাংশ বলেছেন তারা কিডনি সমস্যায় ভুগছেন।

গবেষকরা বলেছেন, স্থূলতাকে কিডনি রোগের ক্ষেত্রে স্বাধীন ঝুঁকির কারণ হিসেবে বিবেচনা করা উচিত। তাই চিকিৎসকদের উচিত, স্থূলকায় তরুণ-তরুণীদের চিকিৎসার সময় কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত কিনা তা পরীক্ষা করা।

যুক্তরাষ্ট্রের আলবার্ট আইনস্টান কলেজ অব মেডিসিনের সহযোগী অধ্যাপক ও গবেষক মাইকেল এল. মিলামেড বলেন, ক্রনিক কিডনি রোগ বয়স্কদের মধ্যে বেশি দেখা যায়। যদিও কিডনির জটিলতা অধিকাংশ মানুষের মধ্যে অনেক আগেই দেখা দেয়। কিন্তু ধরা পড়ে অনেক দেরিতে।

অধ্যাপক মিলামেড আরও বলেন, ক্রনিক কিডনির চিকিৎসার সুযোগ সীমিত। তাই এই ঝুঁকি থেকে বাঁচতে প্রতিরোধই সবচেয়ে ভালো উপায়। স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন তরুণ-তরুণীদের কিডনি দীর্ঘদিন ভালো রাখতে সহায়তা করে।