মেইন ম্যেনু

তাকে বিয়ে করার আগে যে আটটি বিষয় অবশ্যই মিলিয়ে দেখতে হবে

তোমারেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা,
এ সমুদ্রে আর কভু হব নাকো পথহারা।
যেথা আমি যাই নাকো তুমি প্রকাশিত থাকো,
আকুল নয়নজলে ঢালো গো কিরণধারা ॥

তাকে যখন ধ্রুবতারা করেই ফেলেছেন, তাহলে আর দেরী করে লাভ কি? বিয়েটা সেরে ফেললেই হয়। কিন্তু যখনই বিয়ের কথা ওঠে তখনই বেশ দ্বিধায় ভুগতে শুরু করেন আপনি। প্রেম করার সময় তো স্বল্প সময় একসাথে থাকছেন, কিন্তু বিয়ে তো অনেক বেশি দায়িত্বের ব্যাপার। তাই বুঝতে পারছেন না আপনি সঠিক মানুষটির সাথেই প্রেম করছেন কিনা? একটা ভাবনা আপনাকে বারবার আচ্ছন্ন করে রাখে যে, সে আপনার জীবন সঙ্গী হওয়ার জন্য যোগ্য কিনা? জেনে নিন ৮টি লক্ষণ যেগুলো মিলে গেলে বুঝতে পারবেন যে, আপনার সে আপনার যোগ্য-

১) আপনাদের দুজনেরই যদি অভ্যাসে বেশ কিছু মিল থাকে এবং আপনার প্রেমিক/প্রেমিকা যদি আপনার শখ এবং অভ্যাস গুলোকে যথেষ্ট সম্মান করে তাহলে আপনি সঠিক মানুষটির সাথেই প্রেম করছেন।

২) আপনার প্রেমিকা কি প্রায়ই আপনার জন্য রান্না করে খাবার নিয়ে আসে? আপনার পছন্দের খাবার গুলো সে যদি পরম মমতায় শখ করে রেঁধে নিয়ে আসে তাহলে আপনি বুঝে নিন আপনি সঠিক মানুষটির সাথেই প্রেম করছেন। আপনার প্রেমিকা সত্যিই আপনার প্রতি দায়িত্বশীল এবং আপনাকে এ মন থেকেই ভালোবাসে।

৩) আপনার প্রেমিকা যদি আপনার ব্যস্ততার সময় কিংবা গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় অহেতুক বিরক্ত না করে কিংবা হস্তক্ষেপ না করে তাহলে বুঝে নিন আপনার প্রেমিকা একজন আদর্শ স্ত্রী হতে পারবেন।

৪) আপনার প্রেমিকের মন খারাপ থাকলে তার প্রকৃত কারণটা কি তিনি মন খুলে বলেন? যদি না বলে থাকেন তাহলে তিনি চাপা স্বভাবের এবং এক্ষেত্রে সম্পর্ক সুখের হয় না। আর যদি আপনার প্রেমিক আপনাকে মন খুলে তার সমস্যা ও মন খারাপের কারণ জানিয়ে দেয় তাহলে বুঝে নিন তিনি হতে পারবেন আপনার স্বামী হিসেবে যোগ্য।

৫) আপনার প্রেমিকা কি ক্রমাগত আপনাকে বদলে দেয়ার চেষ্টা করছেন? নাকি আপনাকে বদলানোর কোনো চেষ্টাই আপনার প্রেমিকা করেন না? আপনার প্রেমিকা যদি আপনি যেমন সেটাই গ্রহণ করে নেন এবং অহেতুক আপনাকে বদলে দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি না করেন তাহলে তিনি আপনার জীবনসঙ্গী হওয়ার যোগ্য।

৬) আপনার প্রেমিক যদি হাস্যোজ্জ্বল হয় এবং খুব একঘেয়ে মূহূর্তগুলোকেও রঙিন করে দেয়ার ক্ষমতা তার থাকে, তাহলে তাকেই নিজের জীবন সঙ্গী করে নিন। কারণ এ ধরণের সঙ্গীর সাথে জীবনটাকে কখনই একঘেয়ে মনে হবে না।

৭) আপনার প্রেমিকা যদি আপনাকে নিজস্ব কিছু একা সময় কাটাতে দেয় এবং তিনি নিজেও যদি আপনার উপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল না হয়ে থাকে তাহলে তিনি আপনার স্ত্রী হওয়ার জন্য যোগ্য একজন নারী। কারণ সুখী মানুষ হতে হলে প্রতিটি মানুষেরই নিজস্ব কিছু সময় প্রয়োজন যা শুধুই নিজের মত করে কাটানো যায়।

৮) আপনার সঙ্গী কি বিপদের সময় আপনাকে নানান রকম ইতিবাচক পরামর্শ ও সমাধান দিয়ে থাকে? যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে আপনি একজন সৌভাগ্যবান। আর যাকে পেয়েছেন তিনিই আপনার আদর্শ সঙ্গী, আপনার ধ্রুবতারা।

তাহলে আর দেরি কেন? শুভ কাজটা দ্রুতই সেরে ফেলুন।