মেইন ম্যেনু

তাজ্জব! যে ভিডিও দেখার পর আপনি ভুলেও হস্তমৈথুন করবেন না! (ভিডিও)

মে মাস হচ্ছে আন্তর্জাতিক হস্তমৈথুন (masterbration) দিবসের মাস। প্রচলিত আছে যে মে মাসের ৭ তারিখ এই দিবসটি উৎযাপন করা হয়। ইউরোপের দেশগুলোতে এ দিবসটি বেশ ঘটা করেই উদযাপিত হয়। হস্তমৈথুন দিবস উপলক্ষে বেঢপ এবং আজগুবি সব হস্তমৈথুনের গল্প নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিফাইনারি২৯।

রিফাইনারি ২৯ এর বরাত দিয়ে ওই গল্পটি প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। ইন্ডিপেন্ডেন্টে যে নারীর গল্পটি প্রকাশ করা হয়েছে তার নাম বেস্টি।হস্তমৈথুনের গল্প বলতে গিয়ে তিনি বলেন, আমার দাদি আমাকে ওই জিনিসটি উপহার দিয়েছিলেন। আমি অনুমান করে নিয়েছিলাম এটা আমার বাবার কাঁধের ম্যাসেজার। একদিন সেটা নিয়ে চেষ্টা করেছিলাম এবং এরপর থেকে আমি এটা নিয়ে খেলতে শুরু করি। সেটাকে আমি আমার প্যান্টের মধ্যে রেখেছিলাম। আমার কলেজে যাওয়ার বয়স হলো এবং সেটিকে আমি সঙ্গে নিয়েই গেলাম। আমি যে বাসায় থাকতাম সেখানে আমার সাথে আরো তিনজন মেয়ে ছিল। একদিন আমি ক্লাস থেকে ফিরলাম এবং দেখলাম তারা টেলিভিশন দেখছে।

আমি সেটাকে আমার বিছানার উপর রেখে গিয়েছিলাম এবং তাদের মধ্যে একজন সেটাকে ব্যবহার করছিল। তারা সকলেই সেটাকে শরীর ম্যাসাজ করার কাজে ব্যবহার করছিল। আমি খুব বিব্রত হয়ে পড়ার কারণে তাদেরকে বলতে পারিনি যে আমি এটাকে হস্তমৈথুনের কাজে ব্যবহার করি। সুতারং আমি তাদেরকে সেটি নিয়ে সবসময় খেলার সুযোগ দেই পরবর্তী এক বছরের জন্য। এটা আমার যৌনাঙ্গের ম্যাসেজার হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ার পর সেটি রুমের সকলের শরীরের ম্যাসেজার হিসেবে ব্যবহৃত হতে থাকলো। টিভির বিজ্ঞাপন থেকে আসার পর ম্যাসেজারটি যায় আমার দাদির কাছে, আমার বাবার কাছে, আমার কাছে, আমার যৌনাঙ্গে, আমার কলেজে, আমার রুমমেটদের কাছে, যেসব বন্ধুরা আসতো, হয়তো আমার রুমমেটরা বুঝতে পারার পর তাদের যৌনাঙ্গে… এ আমি এ বিষয়টি নিয়ে এখন চিন্তা করলে বেশ অস্বস্তি বোধ করি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন



« (পূর্বের সংবাদ)