মেইন ম্যেনু

তামিমের ‘হাহাকার’, তামিমের ‘প্রত্যয়’

ছয়-সাত মাস বাংলাদেশের খেলা নেই। অখণ্ড এই অবসরে তামিমের মনে ‘হাহাকার’ যেমন আছে, তেমনি আছে ধারাবাহিকতা ধরে রাখার ‘প্রত্যয়’। বুধবার মিরপুরে বসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তামিমের কণ্ঠে বারবার ফিরে এলো সেই ‘আক্ষেপ’ আর ‘প্রত্যয়ের’ কথা।

‘গত বছর ভালো ছন্দে ছিলাম, তখন যদি আরো কিছু ম্যাচ খেলতে পারতাম তাহলে আমার পারফরম্যান্স আরো ভালো হতে পারতো।’ আলাপের শুরুতে বেশি বেশি ম্যাচ না পাওয়ার ‘হাহাকার’ শোনা যায় তামিমের গলায়।

এরপরই তামিম শোনালেন প্রত্যয়ের কথা, ‘আমার যে মাইন্ডসেট ছিল, যে ব্যাটিং এপ্রোচ ছিল, সেই ব্যাটিং এপ্রোচ ও মাইন্ডসেট ধরে রাখার চেষ্টা করবো। বাকিটা ভাগ্যের ওপর নির্ভর করবে।’

একজন ক্রিকেটার যখন ভালো ছন্দে থাকে তখন যত বেশি সম্ভব ম্যাচ খেলা উচিত বলে মনে করেন তামিম।

আগামী অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। আর ইংলিশদের বিপক্ষে বরাবরই ভালো খেলেন দেশসেরা এ ওপেনার। এবারও সে সফলতা ধরে রাখতে চান তিনি। তবে আগে হয়েছে বলে এবারও হয় যাবে এমনটা ভাবছেন না তিনি, ‘আগে ভালো খেলেছি তাই এবারও ভালো খেলবো এমন কোনো কিছু না। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে রান করা সবসময়ই চ্যালেঞ্জিং। কারণ ওদের বেশ কিছু মানসম্মত বোলার আছে। আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলেই ওদের বিপক্ষে রান করতে হবে। আমাকে আরো বেশি কষ্ট করতে হবে। যদি প্রসেস ঠিক রাখি এবং মাইন্ডসেট ঠিক রাখি, তাহলে সফল হবার সুযোগ থাকবে।’

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চারটি টেস্ট খেলেছেন তামিম। আট ইনিংসে চারটি হাফ সেঞ্চুরি ও দুটি সেঞ্চুরিসহ ৬৩.১২ গড়ে মোট ৫০৫ রান করেন মি.খান।

তামিম কিছুদিন আগে ক্ষোভের সঙ্গে বলেছিলেন, ‘২০১৫ সালে বাংলাদেশ দুর্দান্ত খেলার পরও ’১৬ সালে এসে সিরিজ পাচ্ছে না। এটা মানা যায় না। আমি বুঝতে পারি না কেন বড় দলগুলো আমাদের সঙ্গে এখনো খেলতে চায় না।’ এই আক্ষেপ নিয়ে এখন আর বসে থাকতে চাচ্ছেন না তামিম। আইসিসির এফটিপি’র বাস্তবতা মেনে নিচ্ছেন তিনি।