মেইন ম্যেনু

‘তামিম ১০ হাজার রান করুক’

ওয়ানডের পর টেস্টেও বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন তামিম ইকবালের দখলে। শনিবার ভারতের বিপক্ষে ফতুল্লা টেস্টে ১৯ রান করে নতুন মাইলফলক স্পর্শ করেন এই বাঁহাতি। টেস্টে তামিমের রান এখন তিন হাজার ৩৯। ৭টি সেঞ্চুরির সঙ্গে রয়েছে ১৭টি হাফ সেঞ্চুরি। ১৪৪ ওয়ানডেতে তামিমের রান ৪ হাজার ৪৩৭। ৬টি সেঞ্চুরির সঙ্গে রয়েছে ২৯টি হাফ সেঞ্চুরি।

শনিবার নতুন মাইলফলকে পৌঁছতে তামিম পেছনে ফেলেছেন জাতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনকে। তাকে পেছনে ফেলতে ৭ রান প্রয়োজন ছিল তামিমের। আট বল খেলেই সে লক্ষ্যে পৌঁছে যান দেশসেরা ওপেনার।

২০০৭ সালে হাবিবুল বাশার ব্যাট-প্যাড তুলে রাখেন। ৫০ টেস্টে ৯৯ ইনিংসে হাবিবুল বাশারের ব্যাট থেকে আসে ৩ হাজার ২৬ রান। ৩ সেঞ্চুরির সঙ্গে মিস্টার ফিফটির রয়েছে ২৪টি হাফ সেঞ্চুরি। সেই হাবিবুল বাশার তামিমের সাফল্যে বেশ খুশি। দেশের প্রথম টেস্ট জয়ী অধিনায়ক বর্তমানে বিসিবির নির্বাচক প্যানেলের সদস্য। আট বছর ধরে হাবিবুল বাশার সুমনের দখলে ছিল এই রেকর্ডটি।

সেই রেকর্ডটি সম্পর্কে হাবিবুল বাশার বলেন, ‘আজকে মাঠে বেশ সকালেই চলে আসি। আশা করছিলাম তামিম যেন আমার রেকর্ডটি আজকেই ভাঙে। আমি এই টেস্ট শুরুর আগেই ওকে বলেছিলাম, এই টেস্টেই যেন রেকর্ডটি ওর হয়। আমাকে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হলো না।’

মিস্টার ফিফটি আরো বলেন, ‘দেখে খুব ভালো লাগছে তামিম আমার রান অতিক্রম করেছে। অনেকদিন পর রেকর্ডটি ভাঙল। এটা অনেকদিন আমার দখলে ছিল।’

তামিমের থেকে আরো বেশি প্রত্যাশা করছেন হাবিবুল বাশার সুমন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তামিম দশ হাজার রান করুক, আমি তা দেখতে চাই। আমি সব সময় চিন্তা করতাম, হয় তামিম না-হয় সাকিব আমার রান অতিক্রম করবে।’

জাতীয় দলের নির্বাচক প্যানেলের দায়িত্বে থাকা হাবিবুল বাশারের কন্ঠে কিছু হতাশার সুরও শোনা যায়, ‘এই সময়ের ক্রিকেটার হলে ছয়-সাত হাজার রান করতে পারতাম। আগের থেকে এখন সুযোগ-সুবিধা অনেক বেশি।’

এদিকে ৫০ টেস্টে ২৪ হাফ সেঞ্চুরি আছে হাবিবুল বাশার সুমনের দখলে। এজন্য তাকে বলা হয় `মিস্টার ফিফটি। তাইতো খুব আক্ষেপেই সুমন বললেন, ‘ইশ! ২৪ হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসগুলো যদি সেঞ্চুরিতে কনভার্ট করতে পারতাম..!’