মেইন ম্যেনু

তারেকের মেয়ের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে নির্বাচনের চ্যালেঞ্জ গয়েশ্বরের

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের ৩৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বড় মেয়ে জাইমা রহমানের সঙ্গে দেশের যেকোন আসন থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে দেখুন জয়লাভ করতে পারেন কিনা। ’

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে মহিলা দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি তিনি এ চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন।

তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতাদের নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করে হলেও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ দলের শীর্ষ নেতাদের নির্বাচন থেকে ঝেড়ে ফেলে দিয়ে ক্ষমতাসীনরা নির্বাচন দিলেও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারবে না। ক্ষমতাতো দূরের কথা, বিরোধী দলেও আওয়ামী লীগ থাকতে পারবে না।’

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের চোখ শিক্ষার্থীদের ওপর পড়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘সংসদে বড় বড় বাজেট পাশ করে শিক্ষার্থীদের ভ্যাট বৃদ্ধি করেছেন অর্থমন্ত্রী। কারণ, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নিতে পারলে নিজেদের কমিশনটা বেশি হবে।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘যেখানে বিশ্ববাজারে তেল ও গ্যাসের বাজার মূল্য তিন ভাগে নেমে এসেছে সেখানে বাংলাদেশে তেল ও গ্যাসের মূল্য প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি করা হচ্ছে। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, তেল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি পেলেও পরিবহনের ভাড়া বাড়বে না। কিন্তু এরপরও পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে।’ তিনি অবিলম্বে তেল ও গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের পাশাপাশি পরিবহনের ভাড়া কমানোর জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান।

আওয়ামী লীগ মুখে বড় বড় কথা বললেও ভিতরে ভিতরে অনেক দুর্বল হয়ে পড়েছে মন্তব্য করে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ভিতরে ভিতরে দুর্বল হয়ে পড়েছে। কারণ, আওয়ামী লীগের কোনো জনসমর্থন নেই।’

মহিলা দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘আজ থেকে অল্প কয়েক দিনের মধ্যে আমি রাজধানীর ৫২টি থানায় ও প্রতিটি ওয়ার্ডে কম পক্ষে ১০ জন করে রাজপথে মহিলা নেত্রী দেখতে চাই। আপনারা এ কাজ করতে ব্যর্থ হলে মহিলা দলের কমিটি দেয়া হবে না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি নূরে আরা সাফার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সহআইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা প্রমুখ।