মেইন ম্যেনু

তাহলে কী শুরু হতে যাচ্ছে এবার তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ?

শুরু হতে চলেছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ। শুধু তাই নয়, চলতি বছরে ইউরোপের বুকে আরও কয়েকটি জঙ্গি হামলা হবে। একাধিক দেশে চালানো একটা সমীক্ষায় সম্প্রতি এমনটাই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। কারণ, সেই সমীক্ষায় অংশ নেওয়া বেশিরভাগই মনে করেন যে সত্যিই বিশ্বযুদ্ধ আসছে।

মার্কিন আন্তর্জাতিক বাজার গবেষণা সংস্থা ইউগভ সম্প্রতি একটি জনমত সমীক্ষা করে। যেখানে নয়টি দেশের নয় হাজার মানুষ অংশ নেয়। ওই জনমত সমীক্ষায় দেখা যায়, ‘বিশ্বব্যাপী সংঘর্ষে’ মানুষ তাদের ভবিষ্যত সম্পর্কে উদ্বিগ্ন। সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ এবং জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিভিন্ন গোষ্ঠীকে সহায়তা করছে বিভিন্ন বিশ্বশক্তি। মার্কিন জনগণ বিশ্বযুদ্ধে আশঙ্কা করছেন। অপরদিকে, ফরাসি, জার্মান ও ব্রিটিশ জনগণ হতাশ।

সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মার্কিন নাগরিকদের ৬৪ শতাংশ জানিয়েছেন, তারা এক ভয়াবহ যুদ্ধে মুখোমুখি হতে চলেছেন বলে মনে করেন। যেখানে মাত্র ১৫ শতাংশ মনে করেন যে, বিশ্ব শান্তির দিকে এগোচ্ছে। তবে ব্রিটিশরা এর থেকে কিছুটা আশাবাদী। তাদের ১৯ শতাংশ মনে করেন, শান্তি প্রতিষ্ঠা সম্ভব। অপরদিকে, ৬১ শতাংশ যুদ্ধের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

তবে সেই তুলনায় নর্ডিক দেশ সুইডেন, ফিনল্যান্ড এবং নরওয়ের অংশগ্রহণকারীরা অনেক বেশি আশাবাদী শান্তি প্রতিষ্ঠার বিষয়ে। এসব দেশের ৩৯ শতাংশই মনে করেন বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্ঠা সম্ভব। অপরদিকে, ৪৫ শতাংশের ধারণা যুদ্ধ অবশ্যম্ভাবী।

ইউগভ-এর রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক অ্যান্থনি ওয়েলস জানান, ‘দেখা যাচ্ছে আমেরিকা এবং ফ্রান্সের ভয়টা সবচেয়ে বেশি। তবে তার কারণ ভিন্ন। মার্কিনিরা ট্রাম্প ক্ষমতাসীন হওয়ার পর যুদ্ধের সম্ভাবনা বেড়েছে বলে মনে করেন। আবার ফ্রান্সে যুদ্ধের সম্ভাবনা বাড়ার ক্ষেত্রে জঙ্গিবাদের হুমকিই প্রধান কারণ বলে আমার ধারণা।’ সমীক্ষায় আরও জানা যায়, ফিনল্যান্ড ছাড়া বাকি সব দেশের জনগণের বেশিরভাগ অংশগ্রহণকারীই মনে করেন চলতি বছর ইউরোপে ভয়াবহ জঙ্গি হামলা চালানো হবে। ৮১ শতাংশ ফরাসিই ২০১৭ সালে জঙ্গি হামলার মুখোমুখি হবেন বলে মনে করছেন।

অন্যদিকে, এই জনমত সমীক্ষায় আরও উঠে আসে যে, আমেরিকা ও ইউরোপের জনগণ প্রধান হুমকি বলে মনে করে রাশিয়াকে। সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের ৫৯ শতাংশ মার্কিনির বিপরীতে ৭১ শতাংশ ব্রিটিশ রাশিয়াকে প্রধান হুমকি বলে মনে করেন।-কলকাতা২৪