মেইন ম্যেনু

তিন দিনেই অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট জয়

প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের করা ১৪৮ রানের জবাবে ৩১৮ রান করেছিল অস্ট্রেলিয়া। ১৭০ রানের লিড তাদের শুরুতেই এগিয়ে দেয়। শেষ পর্যন্ত এগিয়ে থেকেই ডমিনিকা টেস্ট ম্যাচটি জিতে নিল অস্ট্রেলিয়া। ১৭০ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২১৬ রানের বেশি করতে পারেনি। ৪৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে ৯ উইকেট হাতে রেখে জয়ের স্বাদ নেয় অস্ট্রেলিয়া। এ জয়ে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া।

স্কোরবোর্ডে ২ উইকেটে ২৫ রান নিয়ে শুক্রবার তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ব্রাভো ২ ও ডোয়িচ ১ রান নিয়ে দিন শুরু করেন। কিন্তু বেশি দূর এগুতে পারেনি তাদের জুটি। দলীয় ৩৭ রানে অসি পেসার হ্যাজেলউডের বলে ব্রাভো (৫) সাজঘরের পথ ধরেন।

চতুর্থ উইকেটে প্রতিরোধ গড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ডোয়িচ ও স্যামুয়েলস দলকে টেনে নিয়ে যান ১৮১ রান পর্যন্ত। ১৪৪ রানের জুটি গড়েন তারা। এই জুটিও ভাঙেন হ্যাজেলউড। অভিষিক্ত ডোয়িচ ৭০ রানে ওয়াটসনের হাতে ক্যাচ দেন। ১৮৫ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৭০ রান করেন ডোয়িচ।

১৮১ রানে চতুর্থ উইকেট পতনের পর ধস নামে ক্যারিবীয় শিবিরে। ৩৫ রানে শেষ ছয় উইকেট হারায় স্বাগতিকেরা। অসি পেস ও স্পিন আক্রমণের সামনে মাথা উচু করে দাঁড়াতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ক্যারিবীয় শিবিরে বড় ধাক্কাটা দেন মিচেল স্টার্ক। বাঁহাতি এই পেসার শেষ দিকে দ্রুত ৩ উইকেট তুলে নেন। এ ছাড়া নাথান লিয়ন ২টি ও জনসন নেন ১ উইকেট। ২১৬ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস। সর্বোচ্চ ৭৪ রান করেন মারলন স্যামুয়েলস।

৪৭ রানের সহজ টার্গেটে ব্যাটিং করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪২ রান যোগ করেন শন মার্শ ও ডেভিড ওয়ার্নার। জয়ের থেকে ৫ রানের দূরে থাকতে টেলরের বলে সাজঘরে ফিরে যান ওয়ার্নার। এরপর মার্শ ১৩ ও স্মিথ ৫ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন।

ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান অ্যাডাম ভোজেস।