মেইন ম্যেনু

তিমিদের বশে আনতে নগ্ন হলেন এই রুশ নারী!

নাতালিয়া আভসিঙ্কো পেশায় ডাইভার এবং বিজ্ঞানী। ২০১১ সালের মাঝামাঝি সময়ে তিনি অদ্ভূত একটি অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। তিমিদের বশে আনতে সাগরের পানিতে নগ্ন হয়েই নেমে পড়েন এই রুশ নারী।

পানির তলায় ওই সময় তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ১.৫ ডিগ্রি। এরমধ্যেই দিব্যি তিমির সঙ্গে পানির নিচে ঘুরে বেড়িয়েছেন। ওই সময় নাতালিয়ার কছে অক্সিজেন সিলিন্ডারও ছিল না। সাধারণ মানুষ এত ঠাণ্ডা সমুদ্রের নিচে পাঁচ মিনিট থাকলেই মারা যায়। সেখানে নাতালিয়া সমুদ্রের তলায় ১০ মিনিট ৪০ সেকেন্ড নিঃশ্বাস ধরে রাখতে পারেন। ইয়োগা ও মেডিটেশনের মাধ্যমেই এটা সম্ভব করেছিলেন তিনি।

কিন্তু সবই তো ঠিক আছে। কিন্তু নগ্ন হয়েই পানি নিচে নামা কেন? রুশ নৌবাহিনীর মতে, কোনরকম কৃত্রিম জিনিসের স্পর্শ তিমিদের পছন্দ নয়। পানিতে নামার পোশাক তো সেই কৃত্রিম বস্তুই। পোশাক পরে নামলে তিমিদের সান্নিধ্য পাওয়া যেত না। তাই নগ্ন হয়েই পানিতে নামতে হয় নাতালিয়াকে।

নাতালিয়া সফলও হয়েছিলেন। তিমিগুলোর সঙ্গে ভাব করে তাদের বের করে আনেন নাতালিয়া। পরে তাদের ভিন্ন জায়গায় পাঠানো হয়। ২০১১ সালের ঘটনা হলেও এটি আবারও ভাইরাল হয়েছে।