মেইন ম্যেনু

প্রবল ঝড়ো হাওয়ায় তীব্র ঢেউয়ে ডুবলো ২ লাইটারেজ জাহাজ

প্রবল ঝড়ো হাওয়ায় তীব্র ঢেউয়ের তোড়ে ডুবে গেছে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গরে সিমেন্টের কাঁচামালসহ দুটি লাইটারেজ জাহাজ। উদ্ধার করা হয়েছে ২৮ জন নাবিককে।

সোমবার ভাটিয়ারি উপকূলের দিকে ও জালিয়াপাড়া তীরবর্তী গভীর সমুদ্রে দুটি জাহাজডুবির ঘটনা ঘটে।

প্রথমে বেলা সোয়া একটার দিকে জালিয়াপাড়া তীরবর্তী গভীর সমুদ্রে ডুবে যায় ‘হাজী কায়েস’। এরপর বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ভাটিয়ারি উপকূলের দিকে গভীর সমুদ্রে তলিয়ে যায় ‘অলিম্পিক-টু’ নামের জাহাজ।

চট্টগ্রাম বন্দর ও লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন সূত্রে জানা গেছে, নিম্নচাপের কারণে ঝড়ো বাতাসের মধ্যে তীব্র ঢেউয়ের কারণে ডুবে গেছে ওই দুটি জাহাজ।

‘হাজী কায়েস’ জাহাজটি বহির্নোঙ্গর থেকে এক হাজার ৭০০ মেট্রিক টন ক্লিংকার নিয়ে তীরের দিকে আসার পথে সাগরে ডুবে যায়। এতে অবস্থান করা ১৩ জন নাবিককে উদ্ধার করা হয়েছে। এ লাইটারেজটির মালিক মদিনা গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

অন্যদিকে ভাটিয়ারি তীরবর্তী গভীর সমুদ্রে বড় জাহাজ থেকে ক্লিংকার বোঝাই করার সময় ‘অলিম্পিক-টু’ নামের জাহাজটি ডুবে যায়।

লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নবী আলম জানিয়েছেন, প্রচণ্ড ঢেউয়ে ‘অলিম্পিক-টু’ জাহাজটি কাত হয়ে ডুবতে শুরু করে। পরে এটি তীরের দিকে আসতে চাইলেও ডুবে যায়। এতে থাকা ১৫ জন নাবিককে পরে উদ্ধার করা হয়েছে।

জাহাজটিতে প্রায় এক হাজার ২০০ মেট্রিক টনের মতো ক্লিংকার ছিল। এই জাহাজটির মালিক অলিম্পিক সিমেন্ট লিমিটেড।






মন্তব্য চালু নেই