মেইন ম্যেনু

তীব্র দাবদাহে আড়াইশ’ স্কুল বন্ধ!

তীব্র দাবদাহের কারণে আজ সোমবার আড়াই শতাধিক স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনাটি ঘটেছে মালয়েশিয়ায়। গত ৭২ ঘণ্টায় মালয়েশিয়ার পেরলিস ও পাহাং প্রদেশে তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে গেছে। এরপর কর্তৃপক্ষ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাতে এএফপির এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা যায়।

মালয়েশিয়ার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তীব্র দাবদাহের কারণে ছোট ছোট বাচ্চারা অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন এবং তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি মতো ঘটনা ঘটতে পারে। আর তাই এই স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে প্রায় এক লাখ শিক্ষার্থীকে রক্ষা করতেই স্কুল বন্ধের মতো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এদিকে, তাপপ্রবাহের কারণে মালয়েশিয়ায় উৎপাদন হ্রাস পাওয়ায় সবজির দাম বেড়ে গেছে। ধানক্ষেত ও রাবার চাষ প্রকল্পগুলোও এতে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রশান্ত মহাসাগরের উপরিভাগের তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে জলবায়ুতে যে পরিবর্তন দেখা যায়, তাকে এলনিনো বলে। এর প্রভাবে বিশ্বের এক প্রান্তে অস্বাভাবিক ভারী বৃষ্টিপাত হয়, আরেক প্রান্তে দেখা দেয় তীব্র খরা।

এবারের এলনিনোর প্রভাবে এরইমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গুরুতরভাবে খাদ্য উৎপাদন হ্রাস ও দীর্ঘস্থায়ী পানি স্বল্পতা সৃষ্টি হয়েছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে তাপমাত্রা ব্যাপকহারে বেড়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে গত মার্চে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা বলছে, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে নজিরবিহীনভাবে তাপমাত্রা বেড়ে গেছে।

শক্তিশালী এলনিনোর প্রভাবে এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে শুষ্কতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে থাইল্যান্ড ও ফিলিপাইনের কৃষিখাত ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তবে মালয়েশিয়ার আবহাওয়া বিভাগ বলছে, চলমান তাপমাত্রা শিগগিরই স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

দেশটির আবহাওয়া বিভাগের মহাপরিচালক গায়াহ ইসমাইল বলেন, ‘গত সপ্তাহ থেকে মধ্যবর্তী মৌসুমী বায়ু প্রবাহ শুরু হয়েছে। আশা করছি, দ্রুত বৃষ্টি হবে এবং সংকট কেটে যাবে।’