মেইন ম্যেনু

তুরস্কে প্রেসিডেন্সিয়াল গার্ড বিলুপ্তির সিদ্ধান্ত

তুরস্কে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর প্রেসিডেন্সিয়াল গার্ড রেজিমেন্ট বিলুপ্ত করে দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম। টেলিভিশন চ্যানেলের একটি সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে আর প্রেসিডেন্সিয়াল রেজিমেন্ট থাকবে না। কারণ এর কোনও প্রয়োজন নেই।’

প্রেসিডেন্সিয়াল গার্ড বাহিনীর সদস্য সংখ্যা দুই হাজারের বেশি। তুরস্কে গত সপ্তাহের ব্যর্থ অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার পর এই বাহিনীর অন্তত ৩শ’ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনের ঘনিষ্ঠ সহযোগী হালিস হ্যান্সিকেও আটক করেছে।

প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান ব্যর্থ অভ্যুত্থান চেষ্টার ষড়যন্ত্রের জন্য তার একসময়কার ঘনিষ্ট ফেতুল্লাহ গুলেনকে অভিযুক্ত করেছেন। তবে ওই ব্যর্থ অভ্যুত্থানের সঙ্গে কোনও ধরনের সম্পৃক্ততার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ফেতুল্লাহ গুলেন।

ওই অভ্যুত্থান চেষ্টা বিফলে গেলেও দেশজুড়ে ব্যাপক দমন অভিযান শুরু করেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান। ব্যর্থ অভ্যুত্থানের পর হাজার হাজার সরকারি চাকরিজীবীকে আটক এবং বরখাস্ত করা হয়েছে।

সরকারি কর্মকর্তা, স্কুল শিক্ষক এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রধানসহ বহু মানুষকে তাদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। নতুন করে আরো অনেককেই আটক করা হতে পারে।

বুধবার দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ও কেবিনেটের হাতে সংসদকে পাশ কাটিয়ে নতুন আইন প্রণয়ন কিংবা অধিকার ও স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।

শনিবার সরকারি বিবৃতিতে এক হাজারের বেশি বেসরকারি স্কুল এবং ১২শ’র বেশি সংস্থা বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

তবে শনিবারই অভ্যুত্থানে জড়িত সন্দেহে আটক হওয়া ১২শ’ সেনা সদস্যকে মুক্তি দেয়া হয়েছে বলে তুর্কী গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে।