মেইন ম্যেনু

তুলসি পাতার ঔষধি গুন

বাসাবাড়িতে প্রায়ই তুলসি গাছ নজরে পরে থাকে। বিশেষ করে হিন্দুবাড়িতে। হিন্দু ধর্মের মানুষের কাছে তুলসি গাছের অর্থ বেশ ভিন্ন। কিন্তু সাধারণ অর্থেও আর দশটা গাছের তুলনায় তুলসি গাছের গুনাগুন বেশ ভিন্ন। কারণ তুলসি পাতার রয়েছে ঔষধি গুণাগুণ। ছোটোখাটো অনেক রোগের বেশ ভালো ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয় এই তুলসি পাতা। আজকে দেখে নেয়া যাক এমনই ৫ টি রোগের ঔষধ হিসেবে তুলসি পাতার ব্যবহার।

১। জ্বর তুলসীপাতা সবথেকে বেশি যে অসুখের হাত থেকে আপনাকে রক্ষা করবে তা হল জ্বর। চায়ে তুলসীপাতা সেদ্ধ করে সেই পাণীয় যদি পান করেন, তবে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু প্রভৃতি অসুখ থেকে রক্ষা পেতে পারেন। আপনার পরিবারের কারুর জ্বর হলে তাকে তুলসীপাতা এবং দারুচিনি মেশানো ঠান্ডা চা পান করালে জ্বর সেরে যাবে দ্রুত।

২।। গলার ব্যাথা সামান্য গরম জলে তুলসীপাতা দিয়ে সেদ্ধ করে নিয়ে, সেই জল দিয়ে গার্গল করলে বা জল পান করলে আপনার গলার ব্যাথা দ্রুত সেরে যাবে।

৩। সর্দি ও কাশি সর্দি-কাসি প্রায় প্রত্যেকটি মরসুমের খুব সাধারণ একটি অসুখ যা সবাইকে সমস্যা দেয়। এই সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পেতে গেলে তুলসীপাতা ৫ মিনিট চিবিয়ে রসটি গিলে নিন। তাহলে এই সমস্যার হাত থেকে সহজেই সমাধান পেয়ে যাবেন।

৪।। ত্বকের সমস্যা মাঝে মধ্যেই ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা আপনাকে জর্জরিত করে তোলে। ত্বকে বিভিন্ন মরসুমে বিভিন্ন ধ্রনের সমস্যা দেখা যায়। সেই সমস্যা সমাধানের একটি সহজ ও অন্যতম উপায় হল তুলসীপাতার পেস্ট লাগান। তুলসীপাতার পেস্ট তৈরি করে তা ত্বকে লাগালে এই সমস্যাগুলি কমে যায়।

৫।। কিডনির সমস্যা তুলসীপাতা আপনার কিডনীর বেশ কিছু রোগের সমাধান করে দিতে পারে। তুলসীপাতার রস প্রতিদিন একগ্লাস করে পান করলে, কিডনীতে স্টোন হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম থাকে। যদি কিডনীতে স্টোন জমে যায় তবে তুলসীপাতার রস টানা ৬ মাস পান করলে সেই স্টোন মূত্রের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।