মেইন ম্যেনু

তৃতীয় ধাপ: ৮১ ইউপিতে বিএনপির প্রার্থী নেই

তৃতীয় ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের ২৫ প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। এ ধাপেও ৮১ ইউপিতে বিএনপি কোন প্রার্থী দিতে পারেনি। ৬ এপ্রিল প্রত্যাহারের শেষ দিন থাকলেও মাঠ পর্যায় থেকে চূড়ান্ত প্রার্থীর তথ্য আসতে বিলম্ব হওয়ায় বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায় ইসি।

নির্বাচন কমিশনে পাঠানো তথ্যে দেখা যায়, ৬২০ ইউপি থেকে আওয়ামী লীগের ২৫ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। অন্যদিকে ৮১টি ইউপিতে বিএনপি কোন প্রার্থী দিতে পারেনি। ৬ এপ্রিল এসব ইউপিতে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। আর এ ধাপে ভোট হবে ২৩ এপ্রিল।

এর আগে প্রথম ধাপে আ’লীগের ৬২ জন ও ২য় ধাপে ৩১ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এ নিয়ে বিএনপির প্রতিনিধি দল ইসিতে এসে তাদের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা বাধা দিচ্ছে বলে কয়েক দফা অভিযোগ করেছেন। কিন্তু কোন ব্যবস্থা নেয়নি ইসি।

ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপ সচিব সামসুল আলম জানান, দ্বিতীয় ধাপে আওয়ামী লীগের ২৫ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে।

তিনি জানান, ৬২০ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রয়েছে ২ হাজার ৬৭১ জন। এর মধ্যে ১৪টি রাজনৈতিক দলের এক হাজার ৪৮৭ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে এক হাজার ১৮৫ জন। বিএনপি’র প্রার্থী রয়েছে ৫৩৯ ইউপিতে। এ ধাপে ৮১ ইউপিতে কোনো প্রার্থী নেই দলটির। তিন ধাপে আ’লীগের ১১৮ জন নির্বাচিত, বিএনপি’র প্রার্থী নেই ২৭৯ ইউপিতে।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মার্চ নির্বাচন কমিশন তৃতীয় ধাপে ৬৮৫টি ইউপির তফসিল ঘোষণা করে। এর মধ্যে বিভিন্ন কারণে ১১ ইউপির নির্বাচনী কার্যক্রম স্থগিত করা হয় রিটার্নিং অফিসারদের কাছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার আগেই। আর ৫৩টির নির্বাচন স্থগিত করা হয় গত ২৭ মার্চ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় পার হওয়ার পর। এর মধ্যে রাঙামাটি জেলার ৪৯টি ইউপি রয়েছে। এছাড়া বান্দরবানের আলীকদমের ৪টি ইউপির নির্বাচন স্থগিত করা হয় ভোটারতালিকা সংক্রান্ত জটিলতায়।