মেইন ম্যেনু

তেহরান পৌঁছেছে ইরানি হাজিদের লাশবাহী বিমান

মিনায় নিহত ইরানি হজযাত্রীদের লাশ বহনকারী প্রথম বিমানটি শনিবার সকালে সৌদিআরব থেকে তেহরান পৌঁছেছে। দুর্ঘটনার নয় দিন পর নিহত হাজিদের লাশ দেশে ফিরিয়ে নিতে সক্ষম হলো ইরান। এর আগে হজ চলাকালীন সময়ের ওই দুর্ঘটনা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। ইরান দাবি করছে, মিনায় শয়তানের উদ্দেশে পাথর ছোড়ার সময় পদপিষ্ট হয়ে তাদের ৪৬৪ জন হাজি নিহত হয়েছেন।

শনিবার সকালে হজযাত্রীদের ১০৪টি লাশ নিয়ে প্রথম বিমানটি তেহরানের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এসময় সেখানে ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি এবং অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। শনিবার আরো পরের দিকে নিহত হাজিদের লাশ নিয়ে আরো একটি বিমানের ইরান পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

সৌদি কর্তৃপক্ষ বলছে, মিনার ঘটনায় সবমিলিয়ে ৭৬৯ জন হাজি প্রাণ হারিয়েছে। তবে নিহতের প্রকৃত সংখ্যা আরো বেশি হবে বলেই মনে হয়। মক্কায় হজ চলাকালীন সময়ে গত ২৫ বছরের মধ্যে এটিই সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। মিনার এক হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে আল জাজিরা জানিয়েছে, মিনা দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে।

এই দুর্ঘটনার জন্য সৌদি সরকারের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছে তেহরান সরকার। যদিও তেহরানের এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে রিয়াদ। তারা মিনার ঘটনার জন্য হাজিদের বিশৃঙ্খলাকে দায়ী করেছে।