মেইন ম্যেনু

ইহুদি সেনাদের ফিলিস্তিনি বৃদ্ধ

‘তোমাদের লজ্জা থাকা উচিত!’

পশ্চিমতীর ও গাজায় নির্বিচারে ফিলিস্তিনি হত্যার ঘটনায় ইসরায়েলি সৈন্যদের বিরুদ্ধে ঘৃণা প্রকাশ করেছেন এক ফিলিস্তিনি বৃদ্ধ। ওই সাহসী বৃদ্ধ অস্ত্র হাতে দাঁড়িয়ে থাকা ইসরায়েলি সেনাবাহিনী কাছে ছুটে গিয়ে তাদের তিরস্কার করে বলেন,‘তোমরা নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি বর্ষণ করছ। তোমাদের লজ্জা থাকা উচিত।’

সোমবার ব্রিটেনের ‘দা ইনডিপেন্ডেন্ট’ পত্রিকাটি জানায় ফিলিস্তিনের ওই সাহসী বৃদ্ধার নাম জিয়াদ আবু হালের। ৬৫ বছরের ওই বৃদ্ধ ইসরায়েলি সেনাদের তিরস্কার করে বলেন,‘তোমরা ছোট ছোট বাচ্চাদের ওপর কীভাবে গুলি চালাচ্ছ?’

এসময় এক সেনা তার দিকে বন্দুক উচিয়ে ধরে তাকে গ্রেপ্তারের হুমকি দেয়। কিন্তু ভয় পাওয়ার পাত্র নয় জিয়াদ। তিনি তাদের উদ্দেশে বলেন,‘তোমরা আমাকে আটক করতে পারবে না। আমি এ স্থান ছেড়ে যাব না।’ তিনি তখন চিৎকার করে বলতে থাকেন,‘তোমরা ওই ফিলিস্তিনি শিশুদের আটক কর। তবুও গুলি করো না। আর কত রক্ত চাও তোমরা? আজকেও দুই কিশোরকে সমাহিত করা হয়েছে। আর কত লাশ চাই তোমাদের? তোমাদের কি লজ্জা নেই-তোমারা কি মানুষ না? তোমরা কি কুকুর, না শুকর?’

ইসরায়েলি সেনাদের সঙ্গে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে বুক চেপে ধরে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন জিয়াদ। এসময় তার সাহায্যে এগিয়ে আসেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকরা। তারা তাকে মাটি থেকে উঠিয়ে সেনাদের সামনে থেকে সরিয়ে নিয়ে যান। এরপর অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে প্রাথমিক চিকিৎসার পর জিয়াদকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে পত্রিকাটি জানিয়েছে।

ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় পশ্চিম তীর ও গাজায় গত ১২ দিনে চলতি মাসের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ২৩ ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন শিশু ও কিশোরও রয়েছে।