মেইন ম্যেনু

ত্বকের যত্নে রাতে করুন এই ৮টি কাজ

সারাদিন বাইরে থাকার কারণে আমাদের ত্বক এবং চুল সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকে। বাইরে ধুলোবালি, রোদ, সূর্যের তাপ সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে আমাদের ত্বক এবং চুলে। সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে মলিন ত্বক কারোরই কাম্য নয়। কিন্তু অনেক সময় ভাল ঘুম হওয়ার পরও ত্বক মলিন ক্লান্ত দেখায়। তবে রাতে কিছু কাজ করে সকালে পেয়ে যেতে পারেন স্বাস্থ্য উজ্জ্বল ত্বক।

১। সঠিকভাবে মেকআপ তুলুন

আলসেমী করে অনেকে মেয়েরাই মেকআপ না তুলে ঘুমিয়ে পড়ে। আর তখনই ত্বকের সবচেয়ে বড় ক্ষতি করে থাকেন তারা। মেকআপের কারণে ত্বকের ছিদ্রে ময়লা জমে বন্ধ হয়ে যায়। যা আস্তে আস্তে ত্বকে বলিরেখা ফেলে দিয়ে থাকে। তাই ঘুমাতে যাওয়ার আগে অবশ্যই মেকআপ তুলে ফেলুন।

২। টোনার ব্যবহার করুন

প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে টোনার ব্যবহার করুন। টোনার ত্বকের পিএইচ লেভেল বৃদ্ধি করে। যা ব্যাকটেরিয়া, ধুলোবালি, ময়লা ত্বক থেকে দূর করতে সাহায্য করে। বাজারে নানা রকম টোনার কিনতে পাওয়া যায় তবে গোলাপ জল প্রাকৃতিক টোনার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

৩। হ্যান্ড ক্রিম ব্যবহার করুন

হাত নরম কোমল রাখতে প্রতি রাতে হ্যান্ড ক্রিম ব্যবহার করুন। সম্ভব হলে কুসুম গরম পানিতে সাবান বা শ্যাম্পু গুলিয়ে নিন। এরপর এতে হাত দুটি ভিজিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। তারপর টাওয়েল দিয়ে মুছে কোন ভাল মানের হ্যান্ড ক্রিম লাগান। হাতে বলিরেখা পড়া প্রতিরোধ করবে এই হ্যান্ড ক্রিম। হ্যান্ড ক্রিমের পরিবর্তে অলিভ অয়েল, বাদাম তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

৪। দুটি বালিশ ব্যবহার করুন

চোখের নিচের ফোলা কমাতে দুটি বালিশ ব্যবহার করুন। দুটি পাতলা বালিশে ঘুমানোর অভ্যাস করুন। মধ্যাকর্ষণ শক্তি ত্বক এবং চোখে রক্ত চলাচল সচল রাখে যার কারণে চোখের নিচে পানি জমতে পারে না।

৫। আই ক্রিম

অনেকেই আই ক্রিম ব্যবহার করতে চান না। অথচ আই ক্রিম চোখের নিচে কালি পড়া, বলিরেখা পড়া, এবং চোখের ফোলা ভাব দূর করে দেয়। এছাড়া এটি ত্বক ময়েশ্চারাইজ রাখে।

৬। চুল বাঁধা

অনেকেই আছেন যারা চুল খোলা রেখে ঘুমিয়ে থাকেন। কিন্তু চুল বেঁধে ঘুমানো চুলের জন্য ভাল। ঘুমাতে যাওয়ার আগে ভাল করে চুল আঁচড়ে নেওয়া উচিত। এতে মাথার তালুতে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। এরপর উচু করে খোঁপা বা বেনী করে ফেলুন।

৭। পা ম্যাসাজ করুন

ত্বক পরিচর্চায় পাকে সব সময় অবহেলা করা হয়। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পায়ে ভ্যাসলিন অথবা তেল ম্যাসাজ করে নিন। তেল বা ভ্যাসলিন লাগানোর আগে পা ভাল করে ধুয়ে নিন। পারলে তেল কুসুম গরম করে তারপর ম্যাসাজ করুন। এটি পায়ের রুক্ষতা দূর করে ত্বক নরম কোমল রাখবে।