মেইন ম্যেনু

ত্বকের ৫ সমস্যা সমাধানে একটিমাত্র উপাদান

রান্নাঘরের কিছু উপাদান ত্বক, চুলের যত্নে ব্যবহার হয়ে আসছে আদিকাল থেকে। এই উপাদানগুলোর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া না থাকায় সব ধরণের ত্বকের অধিকারীরা ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকের যত্নে এমনি একটি প্রাকৃতিক উপাদান হলো “সরিষা তেল”। অনেকে এটি শুধু রান্না করার কাজে ব্যবহার করে থাকেন। এটি শুধু রান্না নয়, ত্বক-চুলের যত্নেও সরিষা তেল অনেক উপকারী। সরিষা তেলের অজানা এমন কিছু গুণের কথা জেনে নেয়া যাক।

১। প্রাকৃতিক পরিষ্কারক

প্রাকৃতিক পরিষ্কারক হিসবে সরিষা তেল অনেক উপকারী। এটি ত্বক থেকে ময়লা, ধুলা, বালি পরিষ্কার করে থাকে। এমনকি মেকআপ তুলতে এটি ব্যবহার করতে পারেন।

২। বলিরেখা রোধে

সরিষা তেলের ভিটামিন ই রয়েছে যা ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কয়েক ফোঁটা সরিষা তেল ত্বকের উপর ম্যাসাজ করুন। এভাবে সারারাত থাকুন। সকালে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৩। কালো দাগ দূর করতে

স্বাস্থ্যকর ত্বক পেতে সরিষা তেল বেশ কার্যকর। ত্বকের কালো দাগের উপর সরিষা তেল ম্যাসাজ করুন। নিয়মিত ম্যাসাজে ত্বকের কালো দাগ হালকা হতে থাকবে। প্রাকৃতিক উপাদান বিধায় সময় কিছুটা বেশি লাগবে।

৪। স্কিন টোন উন্নত করা

সরিষা তেল সানস্ক্রিনের কাজ করে। সমপরিমাণ নারকেল তেল এবং সরিষা তেল একসাথে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি ত্বকে ম্যাসাজ করে লাগান। সরিষা তেলে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ই রয়েছে যা প্রাকৃতিক সান স্ক্রিন হিসেবে কাজ করে। যা সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করবে। তবে তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা এটি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। এটি ত্বককে আরো বেশি তেলতেলে করে তুলবে।

৫। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি

সরিষার তেল এবং বেসন একসাথে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। ত্বক সেনসিটিভ না হলে এতে লেবুর রস ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বকে ব্যবহার করুন। ২০ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বকের কালো দাগ দূর করে ত্বক নরম কোমল করে তুলতে সাহায্য করবে।

সূত্র: বোল্ডস্কাই