মেইন ম্যেনু

দরিদ্র এক নারীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ১০০ কোটি!

ভারতের রাজধানী দিল্লির কাছে গাজিয়াবাদের বাসিন্দা কারখানা শ্রমিক শীতল যাদব ডিসেম্বরের ১৮ তারিখ একটি এটিএম মেশিন থেকে টাকা তুলতে গিয়ে আঁতকে ওঠেন। খবর বিবিসির।

মাসে পাঁচ হাজার রুপি যার মজুরি, সেই নারী শ্রমিক দেখতে পান, তার স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার অ্যাকাউন্টে প্রায় এক কোটি রুপি জমা পড়েছে। নিজের চোখকে বিশ্বাস না করতে পরে, ঐ নারী পাশের আরেক জনকে ডেকে দেখান। ঔ ব্যক্তিও তাকে পড়ে শোনান যে অ্যাকাউন্টে ৯৯,৯৯,৯৯,৩৯৪ রুপি জমা আছে।

এটিমএম মেশিন হয়তো ঠিকঠাক কাজ করছে না ভেবে পাশের আরেকটি মেশিনে গিয়ে একই অংক দেখতে পান শীতল যাদব। পরপর দুইদিন তিনি ব্যাংকে গিয়ে তিনি অভিযোগ করেন। কিন্তু, ঐ নারীর স্বামী জিলেদার সিং জানিয়েছেন, ব্যাংক কর্মকর্তারা তাদের কথা পাত্তাই দেয়নি, নানা অজুহাতে তাদের কথা অগ্রাহ্য করেছে।

শেষ পর্যন্ত গতকাল (সোমবার) স্বামী-স্ত্রী মিলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অফিসে বিষয়টি জানিয়ে ই-মেলে একটি অভিযোগ-পত্র পাঠিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর অফিস বা স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার কোনো বক্তব্য এখনও পাওয়া যায়নি।

তবে ভারতে পাঁচশ এবং হাজার রুপীর নোট বাতিলের পর কালো টাকার মালিকরা পরিচিত দরিদ্র মানুষদের ব্যাংক অ্যাকউন্টে বেনামীতে টাকা রাখছেন বলে বহু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, এখানেও হয়ত সেই কাজটি হয়েছে।