মেইন ম্যেনু

দলীয়করণের ক্যানসারে ভুগছে দেশ: কামাল

দলীয়ভাবে দেশের বিচার বিভাগীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিচারক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সংবিধান প্রণেতা ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেছেন, দেশ এখন দলীয়করণ নামের ক্যানসারে ভুগছে।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত ‘বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও কার্যকারিতা নিশ্চিতের লক্ষ্যে করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি।

ড. কামাল বলেন, ‘আজ সংবিধানের অবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দেশের সর্বোচ্চ বিচার বিভাগীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিচারক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে দলীয়করণের মাধ্যমে। এটা থাকা উচিত নয়। এটা অসাংবিধানিক। এ দেশের সংবিধানের জন্য অনেক মূল্য দিতে হয়েছে।’

কামাল হোসেন বলেন, “দলীয়করণ একটা পুরনো রোগ। যে ক্যান্সারে আমরা ভুগছি তার নাম দলীয়করণ। এটাকে অনুবাদ করা যায় না।”

দলীয়করণের ভিত্তিতে জজ নিয়োগ হয় অভিযোগ করে এই সংবিধান প্রণেতা বলেন, “আমার দলের লোক ভালো, যোগ্য, তাকে আমি অগ্রাধিকার দেব। এটা হয় না।”

এই বিশিষ্ট আইনজীবী বলেন, “কোনো রাজনৈতিক দল নির্বাচনে ৩০০ আসন পেলেও অযোগ্য কোনো লোককে বিচার বিভাগে নিয়োগ দিতে পারে না। একটি দেশের বিচার বিভাগ স্বাধীনভাবে কাজ করতে না পারলে সে দেশের সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় না।” সবাইকে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান জানান তিনি।

সুজনের সভাপতি বদিউল আলম মজুমদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান।

বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুজনের নির্বাহী সদস্য শাহদীন মালিক। এ ছাড়া সাবেক নির্বাচন কমিশনার এম শাখাওয়াত হোসেন, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ-সচিব আলী ইমাম মজুমদার, সাবেক বিচারপতি আব্দুল মতিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, প্রাবন্ধিক-গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা প্রমুখ।