মেইন ম্যেনু

দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করেন! নিজের বিপদ নিজেই ডাকছেন

প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে পানি মানুষের শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তাই পানি এমন ভাবে খাওয়া উচিত, যাতে শরীরে যথেষ্ট পরিমাণে পানি থাকে।

মানুষের দেহের ওজনের ২/৩ অংশই পানির ওজন। শীত হোক বা গ্রীষ্ম, শরীরে যথেষ্ট পরিমাণে পানি থাকা বা শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা উচিত। এতে রক্ত সঞ্চালনে অসুবিধা হয় না। আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞ ডঃ ধনবানত্রির মতে, শুধু বেশি পরিমাণে পানি খাওয়াই নয়, পানি খাওয়ার ধরনের দিকেও নজর দেওয়া প্রয়োজন। একটি সর্বভারতীয় পত্রিকাকে দাওয়া সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে বিষদে জানিয়েছেন তিনি।

প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে পানি মানুষের শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। তাই পানি এমন ভাবে খাওয়া উচিত, যাতে শরীরের যথেষ্ট পরিমাণে পানি থাকে। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী, দাঁড়িয়ে পানি খাওয়া উচিত নয়। এমনকী, আপনি কী ভাবে পানি খাবেন, তার উপরে নির্ভর করে সারা দিন আপনার শরীর কেমন থাকবে।

পানি খাওয়ার সময়ে, পানি ঠান্ডা না গরম তার উপরে নজর দেওয়া হয়। কিন্তু তেষ্টার চোটে অনেক সময়েই দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ঢকঢক করে পানি খেয়ে ফেলেন। দাঁড়িয়ে পানি খাওয়ার সময়ে, স্নায়ু অনেক বেশি উত্তেজিত থাকে। শুধু দাঁড়িয়ে পানি খাওয়াই নয়, বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যে কী গতিতে পানি খাবেন তার উপরেও নির্ভর করছে আপনার স্বাস্থ্য।।

দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি খাওয়ার সময়ে পানি খাওয়ার গতি অনেক বেড়ে যায়। এর ফলেই বাতের ব্যাথা বা জয়েন্ট পেন-এর শিকার হতে হয়। আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞ ডঃ ধনবানত্রি জানিয়েছেন, এই প্রত্যেকটি খাবারই ধীর গতিতে খাওয়া উচিত। এতে খাবার সহজে হজম হয়। ধীর গতিতে পানি না খেলে, খাদ্যনালীতে অক্সিজেনের পরিমাণ কমে যায়। এর ফলে, হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া বা ফুসফুসের রোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

দৌড়ে এসে, বা খুব পরিশ্রম করার পরে সঙ্গে সঙ্গে পানি খেলেও ফুসফুসের সমস্যা হতে পারে। তাই এ বার থেকে পানি খাওয়ার সময়ে, কিছুক্ষণ বিশ্রাম করে পানি খান।-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই