মেইন ম্যেনু

দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বুঝুন

আমরা সবাই টুথব্রাশ অথবা মেসোয়াক ব্যবহারের মাধ্যমেই আমাদের সকালটা শুরু করে থাকি। আসলে দাঁত থাকতেই তো দাঁতের মর্ম বুঝা উচিৎ তাই না? যে জিনিসটি দিয়ে গোটা পৃথিবীর মানুষের দিন শুরু হয় আমরা কি জানি সেই জিনিস সম্পর্কে? তাহলে এবার জেনে নেয়া যাক টুথব্রাশ অথবা মোসোয়াক সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য।

১) সাধারণত, আগেকার দিনে টুথব্রাশ তৈরি করার জন্য গরুর পশম দিয়ে। কিন্তু আজকের দিনে নাইলন দিয়ে ব্রাশ বানানো হয়। হাদীস শরীফে বর্ণিত হয়েছে যে, হুজুর পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মিসওয়াক হিসেবে পিলু, যয়তুন ও খেজুর গাছের ডাল ব্যবহার করেছেন। এছাড়াও তিক্ত জাতীয় গাছের ডাল ব্যবহার করেছেন, যেমনঃ- নিম, ভাইট ইত্যাদি।

২) আমি আপনি যে সময়টা ধরে দাঁত মাজি, হিসেব করে দেখবেন, আপনি গোটা জীবনে ৬০ বছর বাঁচলে তার দেড় মাস ধরে শুধু দাঁত মেজেই কাটিয়েছেন। তবে মেসোয়াকের কথা বলতে গিয়ে রাসুল (স.) বলেছেন, ‘আমার উম্মতের জন্য যদি কষ্ট না হতো তাহলে আমি প্রত্যেক নামাজের পূর্বে মেসওয়াক করাকে ওয়াজিব করে দিতাম।’

৩) সারা পৃথিবীতে প্রায় ৪০০ কোটি মোবাইল ফোন ব্যবহার হয় আজকের দিনে। কিন্তু জানেন কি যে, সারা পৃথিবীতে টুথব্রাশ বা মেসোয়াক ব্যবহার করেন সেখানে সাড়ে তিনশো কোটি মানুষ! মানে, দাঁত না মাজলেও চলবে। কিন্তু মোবাইল চাই-ই চাই।

৪) যদিও ২০০৩ সালে একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, ফোন কিংবা গাড়ি ছাড়াও মানুষ সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পারে। কিন্তু টুথব্রাশ বা মেসোয়াক ব্যবহার ছাড়া কিছুতেই নয়।