মেইন ম্যেনু

দাম বাড়েনি, কমছেও না

রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে দিন দিন পণ্য আমদানি বাড়লেও পণ্যের দাম কমেনি। শুক্রবার বাজার ঘুরে দেখা যায়, গত সপ্তাহে কাঁচাবাজারে পণ্যের যে মূল্য ছিল, আজও তা-ই রয়ে গেছে। গত সপ্তাহে ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম আরও কমবে বললে দৃশ্যত কমেনি।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, স্বামীবাগ, কাপ্তানবাজার, সেগুনবাগিচা, শান্তিনগর বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, মানভেদে প্রতি কেজি বেগুন ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় (গত সপ্তাহে ছিল ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা), সাদা গোলাকার বেগুন ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় (গত সপ্তাহে ছিল ৪৫ থেকে ৫০ টাকা), মরিচ ৮০ থেকে ১০০ টাকায়, টমেটো ১১০ থেকে ১২০ টাকায়, গাজর ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, শশা ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, করলা ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়, ঝিঙে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, পটল ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, কাকরোল ৪৫ থেকে ৫০ টাকায়, ঢেঁড়স ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, উচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, চিচিঙ্গা ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়, পেঁপে ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, জলপাই ৩০ থেকে ৪০ টাকায়, ধুন্দুল ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়, বরবটি ৩৫ থেকে ৪৫ টাকায়, কচুর ছড়া ৩০ থেকে ৩৫ টাকায় (গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়), লতি ৩০ থেকে ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে সাদা গোল আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৪ থেকে ৩৫ টাকায়। এ ছাড়া প্রতিকেজি নতুন গোল আলু ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে প্রতিটি বড় লাউ ৪০ টাকায় এবং ছোট লাউ ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিটি ছোট কুমড়া ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা এবং বড় কুমড়া ৮০ টাকা থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপকালে তারা জানান, বাজারে কাঁচাপণ্য বেশি বেশি আসছে। ফলে দাম দিন দিন আরও কমবে বলে জানান তারা।

কাপ্তানবাজার কাঁচাপণ্যের ব্যবসায়ী ইসমাইল জানান, বাজারে এখন সব পণ্যের দামই কম। শীতকালীন পণ্য আমদানি বাড়ার কারণে এখনো দাম হাতের নাগালে রয়েছে।

এদিকে বাজারে মানভেদে প্রতিকেজি ভারতীয় পেঁয়াজ ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া মানভেদে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রতিকেজি দেশি রসুন ৭০ থেকে ৮০ টাকায় এবং আমদানি করা রসুন ১০০ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিকেজি আদা ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে খুচরা বাজারে প্রতি হালি ব্রয়লার মুরগির ডিম ৩৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে হাঁসের ডিমের দাম বেড়েছে। প্রতি হালি হাঁসের ডিম ৪৪ ‍টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে প্রতি হালি হাসের ডিম ৪০ ‍টাকায় বিক্রি হয়েছে। পাইকারি বাজারে ব্রয়লার মুরগির একশ ডিম ৮২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৯৫০ টাকায় (একশ)।

বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি (সাদা)বিক্রি হচ্ছে ১৩৫-১৪০ টাকা। ব্রয়লার মুরগি (লাল) ১৪৫ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে গরুর ‍মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। প্রতিকেজি গরুর মাংস ৩৮০ টাকা থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীতে খাসির মাংসের দাম গত সপ্তাহে বেড়ে এখনো তা অপরিবর্তিত রয়েছে। বাজারে প্রতিকেজি খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫৫০ টাকা থেকে ৬২০ টাকায়।

খুচরা বাজারে মানভেদে প্রতিকেজি মিনিকেট চাল ৪২ টাকা থেকে ৪৩ টাকায়, নাজিরশাইল ৪৭ থেকে ৪৮ টাকায়, মোটা চাল ৩০ থেকে ৩২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শ্যামবাজার কাঁচাবাজার সমিতির সদস্য হাজি রহিম শেখ বলেন, ‘আগের চেয়ে বর্তমানে পণ্যের দাম ক্রেতাদের হাতের নাগালে আছে। কাঁচাবাজারের পণ্যের দাম আরও কমবে।