মেইন ম্যেনু

‘দারুণ একটা বছর কাটিয়েছি আমরা’

অবিশ্বাস্য একবছর! ক্রিকেটীয় দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে ২০১৫ সালকে অভিহিত করা যায় এভাবেই। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা। এরপর দেশের মাটিতে ওয়ানডেতে রীতিমতো অজেয় হয়ে ওঠা। টানা তিন সিরিজে পাকিস্তান, ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মতো পরাশক্তিদের হারিয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

বছরের শেষ প্রান্তে এসে বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও মানছেন, ফলাফল বিচারে অসাধারণ আর সব মিলিয়ে দারুন একটা বছরই কাটিয়েছেন তারা। দেশের একটি শীর্ষ দৈনিককে দেয়া সাক্ষাৎকারে মাশরাফি এভাবেই তুলে ধরলেন এই বছরের স্বর্ণালী সাফল্যের কথা।

বললেন, ‘শুধু ফলাফলের বিচার করলে তো অবশ্যই এটা অসাধারণ একটা বছর ছিল। আমরা অনেক ম্যাচ জিতেছি। এ বছর ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলকে হারিয়েছি। বিশ্বকাপে মোটামুটি ভালো একটা ফলাফল করেছি। ফলে এটা মানতেই হবে যে, দারুণ একটা বছর কাটিয়েছি আমরা।’

তবে মাশরাফি এও মনে রাখছেন এই সাফল্যই আরও ভালো করার চাপ তৈরি করছে। বললেন, ‘‘সবচেয়ে সফল’ ব্যাপারটা তো বলা কঠিন। কারণ সামনে আমাদের আরো ভালো করার সুযোগ সব সময়ই থাকছে। আর মনে রাখতে হবে, এই সাফল্য কিন্তু আমাদের আরো ভালো করার চাপও তৈরি করেছে।’

২০১৪ সালে সময়টা তখন ভাল যাচ্ছিল না বাংলাদেশের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ, এশিয়া কাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর – সব কিছুতেই শোচনীয় হার বরণ করতে হয় বাংলাদেশকে।

সেই ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়ে যুগান্তকারী এক সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। চার অধিনায়কের যুগে পদার্পণ করে ক্রিকেট দল। ওয়ানডে দলে অধিনায়ক করা হয় মাশরাফি বিন মুর্তজাকে।

দায়িত্ব নেওয়ার সময় কি এমন একটা বছর পরিকল্পনায় ছিলো কিনা জানতে চাইলে মাশরাফি বললেন, ‘কল্পনা করা তো কঠিন। আমরা আশা করতে পারি। প্রতিটা ম্যাচ খেলতে নামার আগে আমরা জয়ের আশা করি। কিন্তু একসাথে বসে সামনের এক বছরের জন্য এমন কিছু কল্পনা করা কঠিন। আমিও এমন কল্পনা করিনি।’