মেইন ম্যেনু

দারুন বিষাক্ত এসব প্রাণীকে আপনি চেনেন কি?

সমগ্র বিশ্বে অনেক বিষাক্ত প্রাণী আছে। কিন্তু সবার বিষ একই রকম না। কিছু প্রাণীর হুল ফোটানো ও কামড় শুধুমাত্র জ্বালাময় হয়। আর কিছু প্রাণীর বিষে অনেকেই আস্তে আস্তে অচেতন হয়ে পড়ে। এমনই কিছু বিষাক্ত প্রাণীর কথা আজ আমরা জেনে নেই আসুন।

১। প্লাটিপাস
অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী এই প্রাণীটি অনেক বিষাক্ত। এই চতুর প্রাণীটিকে দেখে নিরাপদ মনে হতে পারে। পুরুষ প্লাটিপাস তার গোড়ালির পাশ দিয়ে দংশন করতে পারে। একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের জন্য এই দংশন দুঃসহ যন্ত্রণাদায়ক হয়। এই ব্যথা দীর্ঘক্ষণ থাকতে পারে এবং এই অবস্থাকে হাইপেরালজেসিয়া বলে। এই অবস্থা এক সপ্তাহ থেকে এক মাসও স্থায়ী হতে পারে।

২। গিলা মনস্টার
গিলা মনস্টার একধরণের রঙিন টিকটিকি যা উত্তর আমেরিকায় বাস করে। তাদের নিউরোটক্সিন বিষ প্রচণ্ড প্রহার করার মত অনুভূত হয়। তারা তাদের সূক্ষ্ম দাঁত দিয়ে শক্ত ভাবে কামড় দেয় বিষ নিশ্চিত ভাবে যেন প্রবেশ করতে পারে সেজন্য। এরা খুবই আক্রমণাত্মক হয়ে উঠতে পারে।

৩। ব্ল্যাক উইডো
পৃথিবীর সবচেয়ে কুখ্যাত মাকড়সা হচ্ছে ব্ল্যাক উইডো মাকড়সা। এরা সবচেয়ে বেদনাদায়ক কামড় দিতে সক্ষম। মজার ব্যাপার হল ছোট ব্ল্যাক উইডোর কামড় এতো বেশি বিপদজনক নয়। কারণ এরা যথেষ্ট পরিমাণে বিষ দিতে পারেনা। দুর্ভাগ্যবশত যদি বড় ব্ল্যাক উইডো কামড় দেয় তাহলে কঠিন সময়ের জন্য তৈরি হয়ে যান। এর কামড়ে লেট্রোডেকটিজম হতে পারে। এর ফলে মাংসপেশীতে ক্রমাগত, শক্তিশালী ও বেদনাযুক্ত সংকোচন হতে পারে এবং মনে হয় যে এটা কখনো থামবেনা।

৪। টেরান্টুলা হক
এই বিশাল মাকড়সাটি অতিলোভী হয়। এরা খুব সহজ শিকার নয়। এরা খুব সহজেই হুল ফোঁটাতে পারে। পৃথিবীর সবচেয়ে বেদনাদায়ক হুল ফোঁটাতে সক্ষম টেরান্টুলা হক মাকড়সা।

৫। স্টোন ফিশ
স্টোন ফিশ এমন ব্যথাযুক্ত হুল ফোঁটাতে পারে যার ফলে আপনি মারাও যেতে পারেন ।

। এরিজোনা বারক স্করপিয়ন
সবচেয়ে বিষাক্ত বিছা এই এরিজোনা বারক স্করপিয়ন। ভীতিকর বিষয় হচ্ছে এদের উত্তর আমেরিকার এরিজোনায় বাসা বাড়িতে পাওয়া যায়। এর বিষের ফলে তীব্র ব্যথা হয়, মুখ দিয়ে ফেনা বাহির হয়, শ্বাস নিতে কষ্ট হয়, মাংসপেশিতে খিঁচুনি হয় এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গকে নিশ্চল করে দেয়।
স্টিংরে, বক্স জেলিফিশ, বুলেট এ্যন্ট, ভাইপার ইত্যাদি প্রাণীগুলোও অত্যন্ত বিষাক্ত।