মেইন ম্যেনু

দাড়ি যেভাবে আপনাকে সুস্থ রাখে

রুপচর্চা কী শুধু নারীর জন্য? পুরুষের সৌন্দর্যও একই রকম দরকারি। আর পুরুষের সৌন্দর্যের অন্যতম অনুষঙ্গ হলো তার শ্মশ্রু, বা দাড়ি। ক্লিন শেভড হোক অথবা ঘন এলোমেলো দাড়ি, মুখের এই জায়গাটা একজন পুরুষ কীভাবে সাজান সেটা তার জীবনের অন্যতম গুরুত্বপুর্ণ একটি সিদ্ধান্ত। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই মাসটি পালন করতে পুরুষেরা নিজেদের দাড়ি বাড়তে দিচ্ছেন। এটা নিছকই খেয়ালি কোনো সিদ্ধান্ত নয়। বরং পুরুষের ক্যান্সারের ব্যাপারে সতর্কতা সৃষ্টি করতে এই কাজটি করা হয়। ক্যান্সারের চিকিৎসায় অনেক পুরুষ তাদের চুল-দাড়ি হারান। এ কারণেই সুস্থ পুরুষেরাও এই মাসে নিজের দাড়ি বাড়তে দেন ইচ্ছেমত। শেভিং এর পেছনে যে টাকাটা বেঁচে যায় সেটা এই প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে আপনি দান করতে পারেন। এই টাকা ব্যয় হবে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধকে শক্তিশালী করতে। ক্যান্সারের জন্য লড়াই ছাড়াও, দাড়ি রাখাটা শুধুই পুরুষের ফ্যশন স্টেটমেন্ট নয়। বরং এটা আপনার স্বাস্থ্যের জন্যও বেশ ভালো বটে। জেনে নিন দাড়ি রাখার দারুণ কিছু উপকারিতা।

১) বয়স কমিয়ে রাখতে সাহায্য করে

অকালেই ত্বকের বার্ধক্য নিয়ে আসতে পারে রৌদ্রের আলট্রাভায়োলেট রশ্মির ক্ষতি। কিন্তু Radiation Protection Dosimetry জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় জানা যায়, আপনার দাড়ি এই রশ্মির ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশই আটকে দিতে পারে, কমাতে পারে স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি। আর দাড়ির কারণে ব্রণের ঝুঁকিও কমে যায় অনেকটা।

২) ত্বকের নিচে ঠেলে ওঠা ইনগ্রোন হেয়ার আর নয়

যারা সবসময় শেভ করেন তারাই জানেন ত্বকের নিচে ফুলে ওঠা ইনগ্রোন হেয়ার কি বিরক্তিকর। কিন্তু দাড়ি ইচ্ছেমত বাড়তে দিলে এগুলো দেখা যায় না। এছাড়াও শেভের কারণে ত্বকের যে ক্ষতি হয়, তা এড়ানো যায় দাড়ি বাড়তে দিলে।

৩) পৌরুষত্ব বেশি মনে হয়

আপনি যদি অন্যের চোখে নিজের পৌরুষ বাড়িয়ে তুলতে চান তাহলে সবচাইতে ভাল উপায় হলো দাড়ি গজানো। Evolution and Human Behavior জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা অনুযায়ী, আপনি যদি দাড়ি রাখেন তাহলে অন্যান্য পুরুষ ও নারী উভয়ের চোখেই আপনি আগের চাইতে বেশি পুরুষালী হয়ে উঠবেন। মোটামুটি ১০ দিনের পুরনো দাড়িটাকে সবচাইতে বেশি আকর্ষণীয় বলে দেখা যায় এই গবেষণায়।

৪) সময় বাঁচায়

দাড়ি কামাতে গিয়ে ক্লিন-শেভড পুরুষেরা ব্যয় করে থাকেন গড়ে ৩,৩৫০ ঘন্টা, বলেন বস্টন ইউনিভার্সিটির ডক্টর হার্বার্ট মেসকন। যাদের দাড়ি থাকে তারা এই সময়টাকে নিশ্চিন্তে অন্য কোনো কাজে ব্যয় করতে পারেন।

৫) কমায় অ্যাজমা এবং অ্যালার্জি

মুখের দাড়ি ধুলাবালি আটকে ফেলে এবং এগুলোকে ফুসফুসে প্রবেশ করতে বাধা দেয়। ফলে আপনার শরীরে অসুস্থতা এবং ইনফেকশনের সম্ভাবনা কমে, জানা যায়।

৬) আপনাকে গরম রাখবে

শীতকালে আপনার চুল যেমন আপনাকে গরম রাখে, তেমনই দাড়িও তার মাঝে উষ্ণতা আটকে রেখে আপনাকে গরম করে তুলবে।

৭) আপনার ত্বক রাখে ময়েশ্চারাইজড

শেভ করার পর মুখে ময়েশ্চারাইজার দিতে হয়। নয়তো ত্বক খুব শুষ্ক হয়ে পড়ে। কিন্তু দাড়ি রাখলে আর সেই চিন্তা থাকে না। দাড়ি ত্বকের প্রাকৃতিক তেল ধরে রাখে, ফলে ত্বক থাকে আর্দ্র। আর বাতাস, টাওয়েলের ঘষাঘষি থেকেও ত্বককে রক্ষা করে দাড়ি। তো এবার কী ভাবছেন? অনেক দিন ধরে যারা দাড়ি রাখার চিন্তা করছেন তারা এবার শভ করা বন্ধই করে দিতে পারেন। আর যারা ক্লিন শেভড থাকতে পছন্দ করেন তারাও ভেবে দেখুন। আর কিছু না হলেও নো শেভ ডিসেম্বরের কল্যাণে দাড়ি রাখুন আর কিছু ডোনেট করে ফেলুন।



« (পূর্বের সংবাদ)