মেইন ম্যেনু

দায় স্বীকার আনসার আল ইসলামের

জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপনের হত্যার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম। সংগঠনটি তাদেরকে জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার ভারতীয় শাখা বলে দাবি করে।

এ ছাড়া শনিবার শুদ্ধস্বরের প্রকাশক আহমেদুর রশিদ টুটুল ও ব্লগারদের ওপর হামলার দায়ও স্বীকার করেছে সংগঠনটি।

দায় স্বীকার করে তারা বিবৃতি দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, এই দুই প্রকাশকের প্রকাশিত বইয়ে রাসুল (সা.) ও ইসলামকে কটাক্ষ করা হয়েছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে তাদের ওপর ‘প্রতিশোধমূলক’ হামলা চালানো হয়েছে। তা ছাড়া এরপর কাদের ওপর হামলা করা হবে, বিবৃতিতে তাদের নামের তালিকাও দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) জনসংযোগ (মিডিয়া) বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) মুনতাসিরুল ইসলাম।

মুনতাসিরুল ইসলাম বলেন, ‘এই হত্যার দায় স্বীকার করেছে আনসার আল ইসলাম নামের একটি জঙ্গি সংগঠন । তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছি আমরা। তদন্ত চলছে। তা ছাড়া তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি আমরা।’

গত ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় অভিজিৎ খুন হওয়ার পরেও টুইটে হত্যাকাণ্ডের দায়িত্ব স্বীকার করে আল কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ শাখার সংশ্লিষ্টতার দাবি করা হয়েছিল, তবে এই সংগঠনটির তৎপরতার বিষয়ে বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের কাছে তেমন তথ্য নেই।

শনিবার রাজধানীর শাহবাগে জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক-মালিক ফয়সাল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় জাগৃতির অফিস থেকে সন্ধ্যায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এদিকে ডিএমপি বলেছে, আজিজ সুপার মার্কেটের তৃতীয় তলায় ১৩২ নম্বর রুমে দীপনকে হত্যার সময় একাধিক সন্ত্রাসী ছিল। তাদের বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক জানিয়েছেন, লালমাটিয়ায় তিনজন এবং শাহবাগে দীপনের ওপর হামলার আঘাত একই ধরনের।