মেইন ম্যেনু

দিনাজপুরে জমে উঠেছে কোরবানী পশুর হাট গো খামারিরা ফেলছে স্বস্তি’র নিঃশ্বাষ

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃপবিত্র ঈদুল আযহা ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে উত্তরের সীমান্ত জেলা দিনাজপুরে কোরবানী পশুর হাট জমে উঠেছে। অন্যান্য বারের চেয়ে এবার ভারত থেকে গরু কম আসায় গরুর দাম রেড়েছে।

কোরবানীর পশুর দাম এবার বেশী থাকায় ক্রেতারা বিপাকে পড়লেও স্বস্তি’র নিঃশ্বাষ ফেলছে গো খামারি ও বিক্রেতারা। গরু মোটাতাজা করণ করে এবার ভাগ্য খুলেছে খামারীদের।

দিনাজপুর জেলার সীমান্ত পথের এই চিত্র এখন পাল্টে গেছে।অন্যান্য বারের চেয়ে এবার ভারত থেকে গরু কম আসছে। আর এ সুযোগটা লুফে নিয়েছে জেলার গরু খামারীরা। গরু মোটাতাজা করণ খামার করে বেশ লাভবান তারা।

দিনাজপুর জেলায় ছোট বড় মিলে প্রায় পাঁচ শতাধিক খামারে এবার গরু মোটাতাজা করণ প্রক্রিয়া করা হয়েছে। এর মধ্যে দুগ্ধ খামারও রয়েছে। যেখানে গাভী পালন করে দুধ উৎপাদনের পাশাপাশি গরু মোটাতাজা করণ করা হয়েছে। অল্প সময়ে কম পরিশ্রমে ষ্াঁড় মোটাতাজাকরন লাভজনক হওয়ায় অনেক বেকার যুবক নিজ বাসাবাড়িতে এই গরু পালন করছে ।

এতে একদিকে যেমন নিজের বেকারত্ব দুর হয়েছে,তেমনি অন্য দিকে দেশীয় আমিষের চাহিদা পুরন হচ্ছে । উন্নত জাতের গরুর পালনের পাশাপাশি দেশীয় প্রজাতির গরুর মোটাতাজাকরন করা হচ্ছে এসব খামারে ।

কাচা ঘাস, চকর, ভুষি, আকারী ,খুদি চালের ভাত, ফিট , ভুট্টার গুড়া ,শুকনো খড়সহ ভিটামিন , মিনারেল এবং শর্করা জাতীয় খাবার সরবারাহ করা হয় এসব গরুর জন্যে। নিয়মিত গো খাবার সরবরাহের পাশাপাশি পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা এবং নিয়মিত গরু’র গোসল করিয়ে চার থেকে ছয় মাস পালন করা হয় এসব গরু। তাই নিজের পাশাপাশি অনেকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন খামারীরা।

জেলার কুরবানীর পশুর চাহিদা মিটিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কুরবানীর পশুর চাহিদা মিটিয়ে আসছে দিনাজপুরের গো খামারীরা। তাই কোরবানী’র পশুর হাটগুলোতে এখন ভারতীয় গরুর চাইতে দেশীয় গরু বেশী দেখা যাচ্ছে।কোরবানীর পশুর দাম এবার বেশী থাকায় ক্রেতারা বিপাকে পড়লেও স্বস্তি’র নিঃশ্বাষ ফেলছে গরু’র খামারি ও বিক্রেতারা। গরু মোটাতাজা করণ করে এবার ভাগ্য খুলেছে খামারীদের।

পশু সম্পদ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন এলাকায় পশু চিকিৎসকেরা গরু খামারীদের খামারে গিয়ে চিকিৎসা সেবা প্রদান করায় এ জেলায় গরু মোটাতাজাকরন গো খামারের সংখ্যা বেড়েছে।

সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে এবং গরুর ভালো দাম পেলে দিনাজপুরে গরু মোটাতাজা করণের গো খামার আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।