মেইন ম্যেনু

দীর্ঘ সাত বছর পর একসঙ্গে নিরব-তিন্নি

তাদের দেখ হয়েছিল একটি মুঠোফোন কোম্পানির বিজ্ঞাপন দিয়ে। বিজ্ঞাপনটি দিয়ে তারা বেশ আলোচনায় আসেন বাংলাদেশের মিডিয়াতে। ছোট পর্দায় একটি জুটি ধারণ করে নিরব-তিন্নি জুটি। যদিও এই একটি মাত্র বিজ্ঞাপন ছাড়া তাদের একসঙ্গে পর্দায় দেখা মেলেনি।

মাঝে মিডিয়ায় দুজনার দু পথ হওয়াতে ভিন্নতা পায় যার যার দৌড়ে। ২০০৮ সালে ইফতেখার আহমেদ ফাহমির ‘সিনেমা’নাটকে অতিথি চরিত্রে অভিনয় করে আবার বেশ আলোচনায় আসনে এই জুটি। তারপর আবারও হাড়িয়ে যানে যে যার ব্যস্ততায়। তবে পাঠকের জন্য একটি খুশির খবর আছে। দীর্ঘ সাত বছর পর একসঙ্গে তিন্নি-নিরব জুটি তাদের ভক্তদের মাঝে ছোট পর্দায় আবারও ফিরে আসছেন। ‘একই বৃন্তে’ নামের এক ঘণ্টার নাটক দিয়ে। নাটকটির গল্প খোদ তিন্নির মা কস্তুরি দত্ত মজুমদারের। এটি রচনা করেছেন আলী আজাদ। পরিচালনা করেছেন সুজন শাহরিয়ারের।

নাটক প্রসঙ্গে নিরব বলেন, ‘অনেক দিন পর একসঙ্গে অভিনয় করা হলো। নাটকটিতে তিন্নি অভিনয় করবে এটা জেনে আমি আর গল্প পড়তে চাইনি। সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে গেছি অভিনয় করতে। ও যে শুধুু আমার পছন্দের তা কিন্তু নয়। ও আমার ভাল বন্ধু। সে এখনও আগের মত হাসি খুশি, দুষ্টু আছে। অনেক ভাল লাগছে যে ভাষায় প্রকাশ করতে পারছিনা।

দীর্ঘদিন পর আশা করি দর্শকের মনের আশা পুরণ হয়েছে’। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকার সরকারী বিজ্ঞান কলেজ ও বিভিন্ন জায়গাতে নাটকটির দৃশ্যধারণ শুরু হয়েছে। আজ ১৬ সেপ্টেম্বর উত্তরার বিভিন্ন জায়গাতে দৃশ্যধারণ হবে বলে জানান অভিনেতা নিরব। আসছে ঈদে নাটকটি একটি বেসরকারী চ্যানেলে প্রচার হবে।