মেইন ম্যেনু

দীর্ঘ ৩০ বছর পর দু’বোনের মিলন

বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার ৩০ বছর পর কলম্বিয়ায় দুই বোন একে অপরের দেখা পেয়েছেন। ১৯৮৫ সালে ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাত ও বরফ ধসের ঘটনায় জ্যাকুলিন ও লোরেনা স্যাঞ্চেজ পরিবারকে হারিয়ে ফেলেন।

সেই থেকে দেখা হয়নি বাবা-মা কিংবা পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের। কিন্তু ৩০ বছর পর কলম্বিয়ার আরমেরো শহরের তলিমার এই দুই বোনের দেখা হয়েছে। কিন্তু কীভাবে সম্ভব হলো তাদের সাক্ষাৎ।

সেই সময়ের ভয়াবহ অগ্ন্যুৎপাত ও বরফ ধসে অন্তত ২০ হাজার মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এরপর এই দুই বোন পৃথক পরিবারে বেড়ে উঠতে থাকেন। কিন্তু কেউ কারো সম্পর্কে কিছুই জানতেন না। দর্ঘিদিন ধরে খুঁজে চলেছেন একে অপরকে।

লোরেনা স্যাঞ্চেজ বিবিসিকে বলেন, এটা অত্যন্ত সুন্দর এবং দুঃখজনক। কেননা ইতোমধ্যে ৩০ বছর পার হয়ে গেছে। এখন আমি আমার বোনকে খুঁজে পেয়েছি। আমরা এখন একে অপরের সঙ্গে ৩০ বছরে ঘটে যাওয়া বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি।

Colombia20160226110208

দুই বোনের দেখা হওয়ার পেছনে রয়েছে আরমানডো আরমেরো ফাউন্ডেশন নামে একটি বেসরকারি সংস্থার উদ্যোগ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এনিয়ে একটি ক্যাম্পেইনের পর দু`বোনের ডিএনএ টেস্ট করা হয়।

অগ্নুৎপাতে বেঁচে যাওয়া পরিবারের সদস্যদের তথ্য চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও পোস্ট করেন লোরেনা। এটি দৃষ্টিগোচর হয় জ্যাকুলিনের। পর আরমান্ডো ফাউন্ডেশন তাদের ডিএনএ পরীক্ষার উদ্যোগ নেয়। পরীক্ষায় দু`বোনের ডিএনএতে মিল পাওয়া যায়।

৩০ বছর পর দেখা হয় ভয়াবহ অগ্নুৎপাত ও তুষারধসে বেঁচে যাওয়া এই দুই বোনের। তবে এখনো বাবা-মার দেখা পাননি জ্যাকুলিন ও লোরেনা স্যাঞ্চেজ।