মেইন ম্যেনু

দুধের শিশুর মুখে সিগারেট

যে বয়সে একটি শিশু ফিডারে করে দুধ খায় সে বয়সেই তাকে সিগারেট আর বিয়ার খেতে বাধ্য করা হচ্ছে। আর যে ব্যক্তি এ গর্হিত কাজটি করছেন তিনি আর কেউ নন-তারই জন্মদাতা। সম্প্রতি ফেসবুকে এ ভিডিও প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। অনেক ইউজার ওই ব্যক্তিকে সনাক্ত করে গ্রেপ্তার করারও দাবি জানিয়েছেন।

ওই শিশুটির বয়স বড় জোর দু থেকে আড়াই। ভিডিওতে শিশুটির সঙ্গে দুজন বয়স্ক ব্যক্তিকেও দেখা যায়। তারা রুমানিয়ার বাসিন্দা। ভিডিওতে দেখা যায়, শিশুটির বাবা তাকে কোলে বসিয়ে হাসতে হাসতে তার মুখে সিগারেট গুজে দিচ্ছেন। এতে টান দেয়ার পর তিনি শিশুটিকে উৎসাহিত করতে বলে ওঠেন,‘বাঘের বাচ্চা, বড় হলে পুরুষের মত পুরুষ হবে।’ এরপরই শিশুটিকে তার সামনের টেবিল থেকে বিয়ারের গ্লাস তুলে নিয়ে পান করতে দেখা যায়। অন্য ব্যক্তিটি তখন ব্যস্ত ছিলেন এ দৃশ্যটি ভিডিও করার কাজে।

এই পিলে চমকানো ভিডিওটি প্রকাশের পর অনেকে ওই দুজনকে সনাক্ত করে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন। বিক্ষুব্ধ এক ফেসবুক ইউজারের মন্তব্য,‘ওই লোক বাবা হওয়ার অধিকার হারিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।’ মাইকেল স্টানকিউ নামের একজন বলেছেন,‘যারা সন্তান নিতে উচ্ছুক তাদের সবারই পরীক্ষা নেয়া প্রয়োজন। পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণদের কখনোই সন্তান জন্মদানের সুযোগ দেয়া উচিত হবে না। এই ব্যবস্থা না নিলে গোটা পৃথিবী প্রতিবন্ধী আর অক্ষম লোকজনে ভরে ওঠবে।’

তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই ব্যক্তির পরিচয় উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। ধারণা করা হচ্ছে ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছিল স্পেনের এক রেস্টুরেন্টের বাইরে থেকে।