মেইন ম্যেনু

দুর্গাপুরে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার রমরমা বাণিজ্য

দুর্গাপুর (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি : নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুরে ৫ম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী ২৮ মে অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র দাখিল নিয়ে চলছে রমরমা বানিজ্য সহ ঘুষ দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিসে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা দেয়ার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের নিয়ম ভেঙ্গে নির্বাচন অফিস হতে চালানের মাধ্যামে জামানত বাবদ চেয়ারম্যান প্রার্থীদের ৫হাজার, মেম্বার প্রার্থীদের ১হাজার টাকা এবং ছবি ছাড়া ভোটার তালিকার সিডি বাবদ ৫শত টাকা জমা দেওয়ার কথা। এরপর মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করে প্রার্থীগণ মনোনয়ন পত্র পূরণ করে অফিসে জমা দেওয়ার কথা থাকা স্বত্ত্বেও উপজেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়ন পত্র বিতরণের পূর্বেই প্রার্থীদের নিকট থেকে চালান ফরম লিখে প্রার্থীদের কাছ থেকে আরও ১শত টাকা করে হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রার্থীগন চালান ব্যাংকে জমা দিয়ে জমার শ্লিপ দেখানোর পর উপজেলা নির্বাচন অফিস হতে ৫শত টাকা থেকে ১হাজার টাকার বিনিময়ে প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র বিতরণ করা হচ্ছে।

এছাড়াও ভোটার তালিকার সিডি দেওয়ার কথা থাকা স্বত্ত্বেও সিডি না দিয়ে প্রার্থীদের নিকট ইন্টারনেটের যাচাই বাছাই প্রিন্ট বাবদ ৩শত ৯০ টাকা নিয়ে মনোনয়ন পত্র লিখে জমা দিতে বাধ্য করছে। এ কাজের সাথে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মঞ্জুরুল হক, অফিস সহকারী আঃ কদ্দুছ, ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মোঃ পারভেজ মোঃ আমিনুল এবং দীর্ঘদিন ধরে থাকা অফিস সহায়ক এর যোগসুত্র রয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মঞ্জুরুল হক এর নিকট জানতে চাইলে, তিনি বলেন আমি এ ব্যাপারে কিছুই জানি না, তবে আমি এ বিষয়ে সর্তক অবস্থা অবলম্বন করব। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ্ আল মুতাহ্সিম এর নিকট বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার জানামতে এখন পর্যন্ত এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি, তবে বিষয়টি আমি দেখছি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান এর নিকট বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।