মেইন ম্যেনু

দুর্বৃত্তদের গুলিতে গাইবান্ধার সরকারদলীয় এমপি লিটন নিহত

নুরুল আলম ডাকুয়া, গাইবান্ধা থেকে : দুই মুখোশধারীর গুলিতে গুরুতর আহত গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে কালো মুখোশ পরা দুই ব্যক্তি বামনডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনের দক্ষিণে শাহবাজ গ্রামে এমপি লিটনের বাড়িতে ঢুকে অতর্কিত গুলি ছোড়া শুরু করেন। এ সময় এমপি লিটনের বুকে গুলি লাগে। গুলি ছোড়ার একপর্যায়ে মুখোশধারীরা পালিয়ে যান। এরপর এমপি লিটনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এমপির ভগ্নিপতী মো. বাদল বলেন, তিনজন মুখোশধারী জানালা দিয়ে এমপি লিটনকে লক্ষ্য করে পরপর কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এ সময় এমপি গুলি থেকে রক্ষা পাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার হাতে, ডান বুক ও বাম বুকে তিনটি গুলি লাগে।

এমপির স্ত্রী খুরশিদ জাহান বলেন, সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে অজ্ঞাতনামা তিন যুবক একটি মোটরসাইকেলে করে সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় এমপি লিটনের বাড়িতে আসেন। এর মধ্যে একজন মোটরসাইকেলে বসে ছিলেন। বাকি দুজন বাড়িতে ঢোকেন। এ সময় তিনটি গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়। এর পরপরই দুজন দ্রুত বাড়ি থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেলে করে পালিয়ে যান।

ঘটনার পরপরই ছয়টা ৪৫ মিনিটে এমপিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। হাসপাতালের সার্জারির বিভাগের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. বিমল চন্দ্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এমপির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নেওয়া হয়েছে। রংপুর মেডিকেলে পুলিশ-র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা রয়েছেন।

এমপির লাশ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন তার স্ত্রী খুরশিদ জাহান ও পরিবারের সদস্যরা। এমপি নিহতের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন দলের নেতাকর্মীরা। তারা খুনিদের শনাক্ত ও দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

গত বছরের ২ অক্টোবর এমপি লিটনের বন্দুক থেকে ছোড়া গুলিতে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার গোপালচরণ গ্রামের শিশু শাহাদাত হোসেন সৌরভ গুলিবিদ্ধ হওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

পরদিন লিটনকে একমাত্র আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা করেন সৌরভের বাবা সাজু মিয়া। ওই মামলায় গত বছরের ১৪ অক্টোবর রাতে রাজধানীর উত্তরা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরদিন গাইবান্ধার আদালতে হাজির করা হলে মুখ্য বিচারিক হাকিম তাকে কারাগারে পাঠান।

পরে গত ৮ নভেম্বর জামিনে মুক্তি পান এই সংসদ সদস্য। চলতি বছরের ১ এপ্রিল এ মামলায় লিটনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ।