মেইন ম্যেনু

দু’হাত ছাড়াই আমিরের ক্রিকেট জয় (ভিডিও)

ইচ্ছে থাকলে যে উপায় হয়, অসম্ভবকে সম্ভব করা যায় তার জ্বলন্ত উদাহরণ বিস্ময় বালক আমির হোসেন।

মাত্র আট বছর বয়সেই নিজের দু’হাত হারানো কারো পক্ষে সাড়া জাগানো কিছু করে দেখানো শুধু কষ্টের নয়, অনেক ক্ষেত্রে অসম্ভবও।

তবে সব প্রতিবন্ধকতাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সবার নজর কেড়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের এ বিস্ময় বালক আমির হোসেন।

মাত্র আট বছর বয়সে নিজের বড় ভাইয়ের জন্য স’মিলে দুপুরের খাবার দিতে গিয়েছিলেন আমির। ওই স’মিলে তৈরী হতো ক্রিকেট ব্যাট। কিন্তু সেখানেই ভয়াবহ এক দুর্ঘটনায় নিজের দু’হাত হারান আমির।

তবে দুর্ঘটনায় দু’হাত হারানো পঙ্গু আমির থেমে থাকেননি। নিজের পঙ্গুত্বকে জয় করার যুদ্ধে নামেন তিনি।

চিকিৎসার জন্য আমিরের পরিবারকে অনেক টাকা খরচ করতে হয়। তার এই পঙ্গু অবস্থা দেখে বন্ধু-বান্ধবসহ অনেকেই সামালোচনা ও বাঁকা চোখে তাকাতো। শিক্ষকরা তাকে স্কুলে না আসার কথা বলতো। তারা বলতো পড়ালেখা সবার জন্য নয়। তবে তাতে নিরুৎসাহিত হননি আমির। সবার সমালোচনাকে এক হাতে নেন তিনি।

সময়ের বিবর্তনে ২৬ বছর বয়সি আমির এখন জম্মু ও কাশ্মির পাড়া ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক। পড়াশুনা শিখে পা দিয়ে সুন্দর করে ইংরেজি লিখে যাচ্ছেন হার না মানা এই যোদ্ধা।

কিন্তু এই অবস্থানে পৌঁছতে অনেক কাঠ-খড় পোড়াতে হয়েছে তাকে। ডান পায়ের সাহায্যে ক্রিকেটার আমিরকে কখনো দেখা যায় বোলারের রূপে। আবার কাধের উপর ব্যাট রেখে ঘাড়ের সাহায্যে চেপে রেখে কখনো দেখা যায় দুর্দান্ত রূপে ব্যাটিং করতে।

ক্রিকেট খেলা, পড়াশুনা ছাড়াও নিজের দৈনন্দিন প্রায় সব কাজই নিজে করেন আমির। গোসল করা থেকে শুরু করে কাপড় পরিবতর্ন করেন নিজের পায়ের সাহায্যেই।

তাছাড়া এক পায়ে রেজার ধরে সেভিংয়ের মতো ঝুঁকিপূর্ণ কাজটিও দিব্যি করে যেতে পারেন আমির।

প্রতিবন্ধকতার কাছে হেরে যাননি আমির। ব্যাট-বলের যে খেলা ক্রিকেটকে হাতের সাহায্য ছাড়া কল্পনা করা সম্ভব নয়।

অথচ সেই অসম্ভব কাজটিকেই পায়ের সাহায্যে করে দেখিয়েছেন আমির। সেই সঙ্গে জয় করেছেন ভদ্র লোকের খেলা বলে পরিচিত ক্রিকেটকেও।

চলুন বাকিটা দেখে নিই ভিডিওতে:



« (পূর্বের সংবাদ)