মেইন ম্যেনু

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে

দৃশ্যকাব্যের মর্যাদায় অভিষিক্ত নজরুলের নাটক

মোঃ ওয়াহিদুল ইসলামঃ নাটক শুধু বস্তুগত জীবনের ভাষাচিত্র হয়ে থাকে না, তা হয়ে ওঠে জীবনের কাব্যরূপ। কাজী নজরুল ইসলামও তেমনি যেসব নাটক রচনা করেছেন, তাতে জীবনের হুবহু অনুকরণ ঘটেনি, তা হয়েছে জীবনের ব্যাখ্যা। পালিত হয়ে গেলো ১১৭ তম নজরুল জন্ম জয়ন্তী। কবির জন্ম জয়ন্তীতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় “গাহি সাম্যের গান” মুক্তমঞ্চটি মেতেছিলো নতুনভাবে ।

কবির জন্মদিনকে ঘিরে পরপর তিন দিন মুক্তমঞ্চে মঞ্চায়িত হয় কবি নজরুলের লেখা নাটক, গান, কবিতা । এসব কিছুই ফুটে উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায়। পর পর তিন দিন তিনটি নাটকের নাট্যসাজ নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হয় নাট্যকলা ও পরিবেশনাবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

প্রথম দিন মঞ্চায়িত হয়েছে নজরুলের গল্প অবলম্বনে ‘দল বরিষণে’ । নির্দেশনা দিয়েছিলেন মাস্টার্সের ছাত্রী নুসরাত জাহান শিমু। এক কালো মেয়ের জীবন ও প্রেম কাহিনী নিয়ে নাটকটি । এই নাটকের কাহিনী নিয়ে কথা হয়েছিলো তাঁর সাথে। তিনি বললেন, ‘এই কাহিনী আজও প্রাসঙ্গিক কালো মেয়েরা সমাজে এখনো অবহেলিত’। তিনি বলেন, সৌন্দর্য আসলে বাইরে নয়, ভিতরে, দেহে নয়, অন্তরে।

পরের দিন একই মঞ্চে ছিল প্রেমের নাটক ‘ঝিলিমিলি’। এটি নির্দেশনা দিয়েছেন নাট্যকলার শিক্ষার্থী রইছ উদ্দীন আহাম্মেদ তাঁর সাথে কথা বলে জানা যায়, বাস্তবতা ও কল্পনার মিশেলে লেখা নজরুলের আরেকটি নাটক ঝিলিমিলি। বাস্তবজীবনের প্রেম ও বিরহকে কেন্দ্র করে এই নাটকটি লেখা হয়েছে। নজরুল যতই রোমান্টিক কিংবা বাস্তববুদ্ধি বিবর্জিত হোন না কেন ঝিলিমিলি নাটকের প্রেম পরাস্ত হয়েছে প্রখর বাস্তবতার কাছে।

অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে ছিল নজরুলের আরেকটি গল্প অবলম্বনে মাহফুজুর রহমানের নির্দেশনায় নাটক ‘বিষ্ণুপ্রিয়া’ । নাটকের শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দর্শক হাসনাত বললেন, ‘নাটকগুলো ছিলো দারুণ সবার অভিনয় ও ছিলো মনোমুগ্ধকর । প্রত্যেকের পরিবেশনা আমরা সবাই খুব উপভোগ করেছি’ ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী-শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী, এবং তাঁদের পরিবারের পাশাপাশি ঘুরতে আসা আশ-পাশের এলাকার মানুষও নাটকগুলো উপভোগ করেন।

SAM 0938736 (1)

SAM 0938736 (3) SAM 0938736 (5)